শুধু শিরোপা নয়, যোগ হয়েছে পরাশক্তির তকমাও

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনালে শিরোপা জয়ের আনন্দ উদযাপন করছেন বাংলাদেশের নারী ফুটবলাররা।
সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনালে শিরোপা জয়ের আনন্দ উদযাপন করছেন বাংলাদেশের নারী ফুটবলাররা।ছবি : সংগৃহীত

অবশেষে স্বপ্ন হলো পূরণ। দূর হলো অনেক দিনের আক্ষেপ। মিটল শিরোপা জেতার ক্ষুধা। দক্ষিণ এশিয়ার নারী ফুটবলের শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট পরল বাংলার মেয়েরা। ফাইনালে নেপালকে ৩-১ গোলে হারিয়ে ষষ্ঠ নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা ঘরে তুলেছেন সাবিনা-কৃষ্ণারা। শিরোপার সঙ্গে সঙ্গে নিজেদের পাশে যোগ করে নিলেন পরাশক্তির তকমাও।

অনেক ঘাম, সমাজের চোখ রাঙানি, শ্রম, ত্যাগ, উপেক্ষা আর যন্ত্রণাময় পথ মাড়িয়ে দেখা মিলল সাফল্যের সোনালি ট্রফি। একবার ফাইনাল, তিনবার সেমিফাইনাল থেকে বিদায়। সেই সঙ্গে প্রতিবার বেড়েছে আক্ষেপ। অবশেষে স্বপ্নের ট্রফি প্রাপ্তির মধ্য দিয়ে সেই আক্ষেপের যন্ত্রণা থেমেছে। সেইসঙ্গে মিটেছে ভারতের বিপক্ষে জয়ের ক্ষুধাও। বোনাস মিলেছে নেপালের বিপক্ষে প্রথম জয়ে, প্রথম শিরোপা জয়ের আনন্দ। এমন সব কীর্তিতেই এবার রচিত হয়েছে অপূর্ণতা, পূর্ণতার গল্পের নতুন এক কাব্যগাথা।

২০১৪ সাল থেকে দলটিকে একটু একটু নিপুণ কারিগরের মতো গড়ে তুলেছেন কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন। টুর্নামেন্টের শুরু থেকে বলে আসছিলেন, শারীরিক আর মানসিক যেভাবে বলা হোক না কেন, মেয়েরা এখন আগের চেয়ে অনেক বেশি পরিণত। প্রতিটি ম্যাচেই মাঠের খেলায় কোচের এমন কথার প্রমাণ রেখেছেন সাবিনা-সানজিদা-স্বপ্নারা।

প্রথম ম্যাচে মালদ্বীপকে ৩-০ গোলে হারিয়ে শুরু হয় অধরা স্বপ্ন জয়ের মিশন। পরের ম্যাচে সাবিনা খাতুনের হ্যাটট্রিকে পাকিস্তানকে উড়িয়ে দেয় ৬-০ গোলে। এরপর আরও দুর্দান্ত বাংলাদেশের মেয়েরা। প্রতিপক্ষ শক্তিশালী ভারত। যাদের বিরুদ্ধে জয় তো দূরের কথা, প্রতিরোধও গড়া যায়নি কখনও। তাদেরই কিনা ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে গ্রুপসেরা লাল-সবুজ দলটি। সেমিফাইনালে ভুটানের জালে আট গোল, টুর্নামেন্টে সাবিনার দ্বিতীয় হ্যাটটিকে বাংলাদেশ পৌঁছে যায় শিরোপার আরও কাছে।

গতকাল সোমবার দশরথের ফাইনালে প্রতিপক্ষ স্বাগতিক নেপাল। যাদের বিপক্ষেও জয়হীন লাল-সবুজরা। শিরোপার লড়াইয়ে নামার কিছু আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দেওয়া সানজিদা আক্তারের আবেগঘন স্ট্যাটাস আলোচনার ঝড় তোলে। যার সারাংশে ছিল, জীবনযুদ্ধে লড়াই করে হারেননি তিনিসহ দলে থাকা সতীর্থরা, আস্থার সঙ্গে বলেছেন হারবেন না তারা। ছিল শুধু পাশে থাকার অনুরোধ।

মাঠে কথা রেখেছেন সানজিদা-মনিকা-মারিয়ারা। বৃষ্টি ভেজা মাঠ, ১৫ হাজার স্বাগতিক দশর্কের চাপ। সবকিছু উপেক্ষা করে নেপালকে ৩-১ গোলে হারিয়ে লিখলেন নতুন ইতিহাস। গলায় পরলেন শিরোপার মালা।

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনালে শিরোপা জয়ের আনন্দ উদযাপন করছেন বাংলাদেশের নারী ফুটবলাররা।
দুই হ্যাটট্রিকসহ ৮ গোল, গোল্ডেন বুট সাবিনার

টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ গোলদাতা বাংলাদেশ দলপতি সাবিনা খাতুন। শুধু তাই নয়, টুর্নামেন্ট-সেরার পুরস্কারও জিতেছেন তিনি। চারটি গোল করে যৌথভাবে দ্বিতীয়তে আছেন সিরাত জাহান স্বপ্না। আর দুটি করে গোল করেছেন কৃষ্ণা রানী সরকার, মাশুরা পারভীন ও ঋতুপর্ণা চাকমা। চারটি ক্লিনশিটে সেরা গোলরক্ষক রুপ্না চাকমা।

টুর্নামেন্টে মোট গোল হয়েছে ৫৯টি, যার মধ্যে প্রতিপক্ষের জালে ২৩টি করেছে বাংলাদেশ। এর বিপরীতে হজম করেছে মাত্র একটি।

ভারত-নেপালকে পেছনে ফেলে শুধু শিরোপা নয়, বাংলাদেশ জানান দিল—তারা এখন দক্ষিণ এশিয়ার নারী ফুটবলের নতুন পরাশক্তি।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com