বিতর্ক চান না সাবিনা

বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন।
বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন।ছবি : সংগৃহীত

গতকাল মঙ্গলবার রাত থেকেই আনন্দের সঙ্গে সঙ্গে সমালোচনায় ভরে উঠেছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম। সাবিনা-সানজিদাদের সাফজয়ের আনন্দে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ঘটে যাওয়া কয়েকটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে চলছে সমালোচনা ও তর্ক-বিতর্ক।

তবে, এ সমালোচনা আর তর্ক-বিতর্কের কারণে আনন্দময় দিনটা নষ্ট হচ্ছে সাবিনা খাতুনের। তাই তো এসব বন্ধের জন্য ভক্ত-সমর্থকদের অনুরোধ করেছেন তিনি।

বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন।
পাকিস্তানে খেলবেন সাবিনা!

ঘটনার সূত্রপাত একটি ছবিকে কেন্দ্র করে। গতকাল মঙ্গলবারের সংবাদ সম্মেলনের একপর্যায়ে দেখা যায়, বাফুফে এবং ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা চেয়ারে বসে আছেন, আর চ্যাম্পিয়ন দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন ও কোচ গোলাম রাব্বানী ছোটন দাঁড়িয়ে আছেন তাদের পেছনে। মুহূর্তের মধ্যে ওই সময়ের ছবিটি রীতিমতো ভাইরাল হয়ে যায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।

শিরোপাজয়ী অধিনায়ক আর কোচকে দাঁড় করিয়ে রেখে কর্মকর্তাদের গণমাধ্যমে মুখ দেখানো নিয়ে শুরু হয় তীব্র সমালোচনা। বিতর্ক এতটাই চরমে ওঠে, খোদ সাবিনা খাতুন ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে তা বন্ধের আহ্বান জানান। বিষয়টিকে ইতিবাচকভাবে গ্রহণ করার অনুরোধ করেছেন তিনি।

বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন।
সাবিনাদের বেতন বাড়ানোর প্রতিশ্রুতি বাফুফের

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া একটি খবরের লিঙ্ক নিজের ফেসবুক পেজে শেয়ার করে সাবিনা লিখেছেন, ‘আমার বিনীত অনুরোধ, এটাকে কেউ নেতিবাচক দৃষ্টিতে দেখবেন না। নেতিবাচক চোখে দেখে দয়া করে আমাদের জীবনের সেরা দিনটি নষ্ট করবেন না। আসুন সবাই ইতিবাচক হই এবং উপভোগ করি। শুধু বলতে চাই, আমরা আপনাদের ভালোবাসি।’

সংবাদ সম্মেলনের শুরুর দিকের একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন সাবিনা খাতুন। এতে দেখা যায়, তিনি বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিনের পাশে বসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দিচ্ছেন। এরপর কোচ গোলাম রাব্বানী ছোটনকে দেখে চেয়ার ছেড়ে সাবিনা বলেন, ‘স্যার, আপনি এখানে আসেন।’ এরপর আসন ছেড়ে দিয়ে সাবিনা পেছনে গিয়ে দাঁড়ান। সাবিনার পোস্ট করা ভিডিওতে যেটা নেই সেটা হলো, পরবর্তীতে ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল এলে কোচ ছোটন চেয়ার ছেড়ে দিয়ে পেছনে গিয়ে দাঁড়ান।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com