প্রথমার্ধে ২-০ গোলে এগিয়ে বাংলাদেশ

বাংলাদেশের নারী ফুটবল দল।
বাংলাদেশের নারী ফুটবল দল।পুরোনো ছবি

নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনালে নেপালের বিপক্ষে ২-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে গেছে বাংলাদেশ। ১৩ মিনিটে সুপার-সাব শামসুন নাহার জুনিয়রের গোলে লিড পায় লাল-সবুজরা। ৪২ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন কৃষ্ণা রানী সরকার।

কিক অফের পর দারুণ শুরু করে গোলাম রাব্বানী ছোটনের দল। প্রথম মিনিটে মারিয়া মান্ডার শট নেপাল গোলরক্ষক আনজিলা সাবু প্রতিহত করেন। ফিরতি বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে সিরাত জাহান স্বপ্না এগিয়ে গেলেও কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা করেন সেই আনজিলাই।

দারুণ শুরুর পর ১০ মিনিটের মধ্যেই সিরাত জাহান স্বপ্নাকে তুলে নিতে হয়। কাফ মাসলে চোটের কারণে ম্যাচে এ ফরোয়ার্ডকে নিয়ে শঙ্কা ছিল। তা দূর করে একাদশে ফিরলও ভারি মাঠের কারণে দ্রুতই উঠে যেতে হয় টুর্নামেন্টে ৪ গোল করা স্বপ্নাকে।

এ ফরোয়ার্ডের বদলি হিসেবে শামসুন নাহার জুনিয়রকে মাঠে নামান কোচ গোলাম রাব্বানী ছোটন। শুরুতে যেটা ধাক্কা মনে হয়েছিল, সে পরিবর্তনটা এলো আশীর্বাদ হয়ে। ১৩ মিনিটে ডানদিকে একজনকে কাটিয়ে বক্সে ক্রস ফেলেন মিডফিল্ডার মনিকা চাকমা। দুই ডিফেন্ডারের সামনে থেকে ভলিতে দূরের পোস্ট দিয়ে বল জালে পাঠান শামসুন নাহার জুনিয়র (১-০)।

গোলের পর নেপাল সমতায় ফিরতে মরিয়া প্রচেষ্টা চালায়। বাংলাদেশ রক্ষণ ও গোলরক্ষক মিলে প্রথমার্ধে দুর্গ অক্ষতই রাখে। ৩৬ মিনিটে নেপালের ফ্রি কিক ঝাঁপিয়ে পড়ে রক্ষা করেন গোলরক্ষক রূপনা চাকমা। দুই মিনিট পর বক্সে সৃষ্ট জটলা থেকে নেপালের শট পোস্টে লেগে গোলে যাওয়ার মুখে ক্লিয়ার করেন আঁখি খাতুন।

৪২ মিনিটে খেলার ধারার বিপরীতে গোল পেয়ে যায় বাংলাদেশ। ভুল পাস ধরে শামসুন নাহারের পা ঘুরে আসা বলে সাবিনার পাস থেকে কৃষ্ণা রানী সরকার লক্ষ্যভেদ করেন (২-০)।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com