ঘাম ঝরানো জয়ে বেলজিয়ামের শুরু

বল নিয়ে ছুটছেন বেলজিক অধিনায়ক হ্যাজার্ড
বল নিয়ে ছুটছেন বেলজিক অধিনায়ক হ্যাজার্ডছবি: সংগৃহীত

লড়াই হলো হাড্ডাহাড্ডি। বেশ কয়েকটি গোলের সুযোগ পেয়েও হতাশ কানাডা। শেষ হাসি বেলজিয়ামের। বিশ্বকাপের এফ গ্রুপের ম্যাচে বুধবার গভীর রাতে কানাডাকে ১-০ গোলে হারিয়ে কাতার মিশন শুরু করেছে বেলজিয়াম।

ধারেভারে এগিয়ে ছিল বেলজিয়াম। ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে দুই নম্বরে বেলজিকরা। সেখানে কানাডার অবস্থান ৪১তম। কিন্তু ম্যাচের শুরু থেকে কানাডাই ছিল বেশ আক্রমণাত্মক। করে যায় একের পর এক আক্রমণ। এর রেশ ধরেই ৮ মিনিটে পেনাল্টি পায় দলটি। ভিআরএ দেখা যায় বক্সের মধ্যে হাতে বল লেগেছে বেলজিয়ামের কারাস্কোর।

কানাডার পেনাল্টি কিক ফেরানো বেলজিয়ামের গোলরক্ষক কুর্তোয়া
কানাডার পেনাল্টি কিক ফেরানো বেলজিয়ামের গোলরক্ষক কুর্তোয়াছবি: সংগৃহীত

প্রাপ্ত পেনাল্টি কাজে লাগাতে পারেনি ৩৬ বছর পর বিশ্বকাপে খেলতে আসা কানাডা। আলফোনসো ডেভিসের নেওয়া শট ঝাঁপিয়ে রক্ষা করেন বেলজিয়ামের গোলরক্ষক থিবাস কুর্তোয়া। ১৯৬৬ সালের পর বেলজিয়ামের কোনো গোলরক্ষক বিশ্বকাপে ঠেকালেন পেনাল্টি কিক।

এরপর ক্রমেই জেগে উঠতে থাকে বেলজিক শিবির। ৪৪ মিনিটে বেলজিয়াম পেয়ে যায় কাঙিক্ষত প্রথম গোল। গোলটি ছিল নান্দনিক। আডারইউরেল্ডের লম্বা পাসে দুরন্ত শটে কানাডার গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন মিচি বাতসুয়াই (১-০)।

কুর্তোয়ার দেয়াল ভাঙতে পারেনি কানাডার স্ট্রাইকাররা
কুর্তোয়ার দেয়াল ভাঙতে পারেনি কানাডার স্ট্রাইকাররাছবি: সংগৃহীত

দুই মিনিট পরই দুর্দান্ত আক্রমণে বেলজিয়ান রক্ষণকে স্তব্ধ করে দিয়েছিল কানাডা। কিন্তু নিজেদের ভুলেই সমতায় ফিরতে পারেনি তারা। সতীর্থের ক্রস ছয় গজ বক্সের বাইরে অবিশ্বাস্যভাবে উড়িয়ে মারেন তাহোন বিউকানান।

প্রথমার্ধে এক গোল বাদ দিলে কানাডার দাপট ছিল দেখার মতো। দ্বিতীয়ার্ধেও লড়াই হয়েছে দেখার মতো। কিন্তু এই অর্ধে গোলের দেখা পায়নি কোনো দলই। পূর্ণ তিন পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ে বেলজিয়াম। এফ গ্রুপে সবার উপরে বেলজিয়াম। এক পয়েন্ট নিয়ে যথাক্রমে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে রয়েছে ক্রোয়েশিয়া ও মরোক্কো।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com