দ.কোরিয়ার জাল খুঁজে পেল না উরুগুয়ে

এক হেড নিতে তিন ফুটবলারের তুমুল লড়াই।
এক হেড নিতে তিন ফুটবলারের তুমুল লড়াই।ছবি : সংগৃহীত

পুরো ম্যাচে লড়াইটা হলো বেশ। তবে গোলের সুযোগটা বেশি পেল উরুগুয়ে। দুটি শট ফেরত এলো পোস্টে লেগে। সেখানেই হয়তো কপাল পুড়ল লাতিন আমেরিকার দেশটির। বৃহস্পতিবার বিশ্বকাপের এইচ গ্রুপের ম্যাচে দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করেছে লুইস সুয়ারেজরা।

১৯ মিনিটে উরুগুয়ের প্রথম আক্রমণ। মারিয়া হিমেনেসের লম্বা পাসে বল ডি-বক্সে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে শট নেন উরুগুয়ের ভালভারদে। তবে বল চলে যায় ক্রসবারের ওপর দিয়ে। তিন মিনিট পর সুয়ারেজের পাসে বক্সের মধ্যে লাফিয়ে ভলি করার চেষ্টায় বলে পা ছোঁয়াতে পারেননি লিভারপুল ফরোয়ার্ড নুনেস।

দক্ষিণ কোরিয়ার দর্শক।
দক্ষিণ কোরিয়ার দর্শক।ছবি : সংগৃহীত

২৭ মিনিটে পাল্টা আক্রমণে আরেকটি দারুণ সুযোগ তৈরি করে উরুগুয়ে। তবে বিপদমুক্ত করেন গোলরক্ষক কিম সিউং-জু। ৩৪ মিনিটে প্রথম উল্লেখযোগ্য সুযোগ পায় দক্ষিণ কোরিয়া। তবে বল উড়িয়ে মেরে হতাশ করেন ফরোয়ার্ড হওয়াং উই-জো। বিরতির আগে ভাগ্যের ফেরে গোল পায়নি উরুগুয়ে। কর্নারে অভিজ্ঞ ডিফেন্ডার দিয়েগো গডিনের হেড পোস্টে লাগে।

দ্বিতীয়ার্ধেও দুদলের লড়াই হয়েছে বেশ। এই অর্ধে উরুগুয়ে ছিল একটু বেশি আক্রমণাত্মক। ৯০ মিনিটে জয়সূচক গোল পেতেও পারত দলটি। কিন্তু ভাগ্য সহায় হয়নি। ভালভার্দের বুলেট গতির শট ফিরে আসে পোস্টে লেগে। অতিরিক্ত সময়ে দক্ষিণ কোরিয়াও গোলের সুযোগ তৈরি করেছিল দুটি। কিন্তু কোনো শট লক্ষ্যে থাকেনি।

গ্যালারিতে উরুগুয়ের ভক্ত-সমর্থকরা।
গ্যালারিতে উরুগুয়ের ভক্ত-সমর্থকরা।ছবি : সংগৃহীত

ম্যাচে উরুগুয়ের গোলপোস্টে নেয়া ১০ শটের মধ্যে লক্ষ্যে ছিল মাত্র একটি। অন্যদিকে কোরিয়া সাত শট নিলেও লক্ষ্যে ছিল না একটিও। উরুগুয়ে চারবার কর্নার আদায় করলেও কোরিয়া পায় তিনবার। এই ম্যাচে একটিবারও অফসাইডের ফাঁদে পড়েনি কোরিয়ান ফুটবলাররা।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com