সবাই মারা গেছি : মেসি

সবাই মারা গেছি : মেসি

এমন বাজেভাবে বিশ্বকাপ মিশন শুরু হবে আর্জেন্টিনার, তা হয়তো কেউ ভাবতে পারেনি। লিওনেল মেসিদের কল্পনাতেও ছিল না। সৌদি আরবের সঙ্গে মঙ্গলবার ২-১ গোলে হেরেছে আর্জেন্টিনা। বিশ্বকাপ ইতিহাসের সেরা অঘটনের পর আর্জেন্টাইন ফুটবলারদের মনের অবস্থা তুলে ধরেছে আর্জেন্টিনার সংবাদপত্র ‘ক্ল্যারিন’।

বিশ্বকাপ মিশন হার দিয়ে শুরু হওয়ার পর কেউ নাকি খেতেও আসনি। ‘ক্ল্যারিন’ লিখেছে, ‘হারের পরে স্টেডিয়ামের টানেল দিয়ে ঢোকার সময় আর্জেন্টিনার ফুটবলাররা একে অন্যর সঙ্গে কথা বলেননি। লুসাইল স্টেডিয়ামের ড্রেসিংরুমে প্রায় এক ঘণ্টা বসেছিলেন ফুটবলাররা। সেখানে মেসি মুখ খোলেননি; কিন্তু বাসে ওঠার আগে সাংবাদিকদের সামনে মেসি বলেন, ‘আমরা মারা গেছি। এটাই সত্যি। কারণ, আমরা ভাবতে পারিনি এভাবে হারব।’

‘তিন পয়েন্টের আশায় মাঠে নেমেছিলাম। সবকিছুর একটা কারণ থাকে। সামনে যা আসবে, তার জন্য তৈরি থাকতে হবে। আমাদের জিততেই হবে। সবটাই আমাদের ওপর নির্ভর করছে।’ তবে পত্রিকাটি জানিয়েছে কাতার বিশ্ববিদ্যালয়ের শিবিরে ফেরার পথে অধিনায়ক মেসি বলেছেন। ভেঙে পড়া সতীর্থদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আমরা জানি এ দলটা কী দিয়ে তৈরি। সেটা আমাদের মাথায় রাখতে হবে। আরও বেশি শক্তিশালী হয়ে উঠতে হবে। সামনের দিকে তাকাও।’ তবে মেসির কথায় কতটা উজ্জীবিত হয়েছে দল, তা এখনো বোঝা যায় না। আর্জেন্টিনার পত্রিকাটি তাদের প্রতিবেদনে জানিয়েছে, নৈশভোজেও খুব একটা কথা বলছিলেন না ফুটবলাররা। পরে অবশ্য সমাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ফুটবলাররা একে অন্যকে উজ্জীবিত করার চেষ্টা করেছেন। সৌদি আরবের সঙ্গে হারের পর অনুশীলনের সময়ও বদলে গেছে মেসিদের। কাতারে পা রাখার পর সন্ধ্যা ৬টা বা দুপুর ৩টায় অনুশীলন করতেন মেসিরা। গতকাল সকাল ১১টায় অনুশীলন করেছেন তারা।

সৌদি আরবের বিরুদ্ধে ৯ মিনিটেই পেনাল্টি থেকে গোল করে ভালো শুরুর ইঙ্গিত দিয়েছিলেন মেসিরা; কিন্তু হঠাৎ মরুঝড়ের মতো দুই গোল পরিস্থিতি বদলে দেয়। আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপ ইতিহাসের সেরা অঘটনের শিকার হওয়ার পর মেসি সমর্থকদের আশ্বস্ত করে বলেন, ‘জানি, অনেক মানুষ আমাদের ওপর ভরসা করেন। শুধু আমি বা দল নয়, এটা সব সমর্থকদের কাছে বিরাট একটা ধাক্কা। কখনো ভাবতে পারিনি হেরে যাব। তবে একটা কথা বলতে পারি, আমরা সমর্থকদের মিথ্যা বলে এখানে আসিনি। আগেও অনেক ম্যাচ খেলেছি। আজও খুব একটা খারাপ খেলিনি। আশা করি এই হার থেকে শিক্ষা নিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যাব।

ঐক্যবদ্ধ হওয়ার এটাই সেরা সময়। এই হার আশা করিনি ঠিকই; কিন্তু সব পরিস্থিতি বদলে দেওয়ার ক্ষমতা আমাদের হাতেই রয়েছে।’ আত্মবিশ্লেষণ করতে গিয়ে মেসি আরও বলেন, ‘দ্বিতীয়ার্ধে মনে হয়েছে আমরা একটু তাড়াহুড়ো করে ফেলেছিলাম। প্রথম দিকে যেটা ঠিকঠাকভাবে করছিলাম, সেটা ধরে রাখতে পারিনি। ওদের খেলার জায়গা দিয়েছি। ওদের ফাঁদে পা দিয়ে ফেলেছি। খুব বেশি আক্রমণের দিকে নজর দিয়েছি। তবে এখন তো ফলের পরিবর্তন করা যাবে না। যে লক্ষ্য নিয়ে বিশ্বকাপে খেলতে এসেছি, সেটা পূরণ করাই আমাদের লক্ষ্য।’ বিশ্বকাপে আসার আগে টানা ৩৬ ম্যাচে অপরাজিত থাকা আর্জেন্টিনার কোচ লিওনেল স্কালোনি বলেন, ‘আজ দুঃখের দিন। তবু দলের ছেলেদের বলেছি, মাথা উঁচু রাখতে। ম্যাচের আগে আমরাই এগিয়ে ছিলাম। ফুটবলে এ রকম হতেই পারে। আজ যেগুলো ঠিক হয়নি, পরের ম্যাচে সেগুলো ঠিক করার লক্ষ্যেই নামব।’ শনিবার মেক্সিকোর বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচ খেলতে নামবে আর্জেন্টিনা।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com