রোনালদো : বিশ্বকাপে ক্লাববিহীন একমাত্র ফুটবলার

অনুশীলনে ব্যস্ত রোনালদো।
অনুশীলনে ব্যস্ত রোনালদো।ছবি : সংগৃহীত

না, বিদায় করে দিয়েছেন বলা যাবে না। পারস্পরিক সমঝোতার মাধ্যমেই ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। এটা নিয়ে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড একটি বিবৃতিও জারি করেছে।

টানা দুই মৌসুম কাটানোর জন্য এবং দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের জন্য ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ধন্যবাদ জানিয়েছেন রোনালদোকে। তার পরিবারকে ভবিষ্যতের জন্য শুভেচ্ছাও জানানো হয়েছে। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে ৩৪৬ ম্যাচে ১৪৫টি গোল করেছেন রোনালদো। মঙ্গলবার রাতে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়, ‘পারস্পরিক সম্মতির ভিত্তিতে অবিলম্বে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ছাড়ছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো।’

‘ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে দুই দফায় যে অপরিসীম অবদান রেখেছেন রোনালদো, সেজন্য তাকে ধন্যবাদ জানায় ক্লাব।’ নিজেও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আবেগঘন একটা পোষ্ট দিয়েছেন রোনালদো। তিনি লিখেছেন, ‘ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সঙ্গে আলোচনার পরে আমরা পারস্পরিক সম্মতিতে মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই চুক্তি ছিন্ন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে ভালোবাসি এবং সমর্থকদেরও। এই ভালোবাসা কখনো বদলাবে না। আমার মনে হয়েছে নতুন চ্যালেঞ্জের খোঁজ করার এটাই সঠিক সময়। বাকি মৌসুম ও ভবিষ্যতের জন্য ক্লাবের সাফল্য কামনা করি।’ সম্প্রতি সাংবাদিক পিয়ার্স মরগ্যানকে একটি ইন্টারভিউ দিয়েছিলেন রোনালদো। সেখানে ক্লাব, ক্লাবের মালিক এবং সাবেক ফুটবলারদের কটাক্ষ করেছিলেন।

পাশাপাশি টিমের ম্যানেজার এরিক টেন হাগকে অযোগ্য বলেন। ব্রিটিশ ক্লাব তার সঙ্গে ‘বিশ্বাসঘাতকতা’ করেছে জানিয়ে পর্তুগিজ তারকা বলেছিলেন, ‘শুধু টিমের ম্যানেজারই নন, ক্লাবের শীর্ষ কর্তারাও আমাকে জোর করে সরিয়ে দিতে চাচ্ছেন। ২ থেকে ৩ জন এর পেছনে রয়েছেন। এখন তো বিশ্বাসঘাতকতার শিকার হয়েছি বলে মনে হচ্ছে।’ গত বছর ইতালির ক্লাব জুভেন্তাস ছেড়ে আবার ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে যোগ দেন রোনালদো। তারপর থেকে একাধিকবার টিমের ম্যানেজারদের সঙ্গে ঝামেলায় জড়িয়েছেন তিনি। পিয়ার্স মরগ্যানকে দেওয়া ওই সাক্ষাৎকারে তিনি আরও বলেন, ‘আমি কারোর পরোয়া করি না। সমর্থকদের সত্যিটা জানা উচিত। হ্যাঁ, বিশ্বাসঘাতকতার শিকার হয়েছি বলে মনে হয়েছে। কিছু মানুষ এখানে আমাকে পছন্দ করছেন না। এ বছরই শুধু নয়, গত বছরও এমনটা হয়েছিল। আমি ওই মানুষটিকে একদম শ্রদ্ধা করি না।’

কারণ, উনি আমাকে সম্মান করেন না। আপনি কাউকে সম্মান না করলে নিজেও সম্মান পেতে পারেন না।’ সাক্ষাৎকারে ম্যানচেস্টারের এক সময়ের সতীর্থ রুনির নিন্দা করেছিলেন রোনালদো। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ছাড়ার খবর শুনে রুনি অবশ্য বলেছেন, ‘এটা খুবই লজ্জার। রোনালদো ম্যানচেস্টারের হয়ে খেলেছে। দলের প্রতি ওর দায়বদ্ধতা আছে। সবাই ওর সাক্ষাৎকারটা দেখেছে। আমার মনে হয়ে না, তারপর আর ওকে দলে রাখা সম্ভব ছিল। তার মতো একজন ফুটবলারকে এমন অবস্থায় মেনে নেওয়া যায় না। আমি বহুবার বলেছি যে, সর্বকালের সেরা ফুটবলারদের একজন সে। আমার সাবেক সতীর্থ হিসেবে খারাপ লাগছে এটা দেখতে যে, ম্যানচেস্টারের হয়ে আর খেলবে না রোনালদো।’ এদিকে রোনালদোর বিকল্প খুঁজতে শুরু করেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। দ্য সান এক প্রতিবেদনে পিএসভি আইন্দোহফেনের তারকা কোডি কাপকোর নাম উল্লেখ করেছে। বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে সেনেগালের বিপক্ষে গোলও পেয়েছেন কাপকো।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com