রাসেল-মঈনদের সঙ্গে খেলার সুযোগ মিলছে আমিরাতের তরুণদের

রাসেল-মঈনদের সঙ্গে খেলার সুযোগ মিলছে আমিরাতের তরুণদের

২০২৩ সালের জানুয়ারিতে সংযুক্ত আরব আমিরাতে শুরু হচ্ছে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি লিগ। ছয় দল ও ৩৪ ম্যাচের এই টুর্নামেন্টে সুযোগ মিলবে দেশটির বিভিন্ন পর্যায়ের প্রতিভাধর ক্রিকেটারদের। পুরো বিশ্ব থেকেই বড় বড় তারকাদেরও দেখা মিলবে এখানে।

আগামী বছরের জানুয়ারিতে শুরু হতে যাওয়া এই টুর্নামেন্টে খেলবেন আন্দ্রে রাসেল, শিমরন হেটমায়ার, মঈন আলি, ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গারার মতো তারকা ক্রিকেটাররা। শুধু আন্তর্জাতিক তারকাই নয়, তাদের সঙ্গে খেলবেন আমিরাতের স্থানীয় ক্রিকেটাররাও। প্রতি দলে অন্তত চারজন স্থানীয় ক্রিকেটারকে নিতে হবে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর। এর মধ্যে দুজনকে খেলাতে হবে একাদশে। ক্রিকেটারদের খুঁজতে এরই মধ্যে এ নিয়ে ট্রায়ালও শুরু করেছে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো।

এই টুর্নামেন্ট নিয়ে এমিরেটস ক্রিকেটের ডিরেক্টর অব ক্রিকেট ও হেড কোচ রবিন সিং বলেন, ‘আমাদের অসাধারণ কিছু প্রতিভা আছে। যাদের এখনো বিশ্ব জানেনি। আমরা বিশ্বাস করি, আমিরাতের ক্রিকেটারদের ক্রিকেটের সেরা কিছু ক্রিকেটারের সঙ্গে অনুশীলন ও খেলার সুযোগ করে দিচ্ছি। ফ্র্যাঞ্চাইজি মালিকদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ ও তাদের নিয়ে গর্বিত এমন সুযোগ দেওয়ায়।’

আইএল টি-টোয়েন্টি লিগের অন্যতম দল ডেসার্ট ভাইপারসের ডিরেক্টর অব ক্রিকেটার টম মুডি বলেন, ‘আমরা ট্রায়াল করছি কারণ যারা স্পটলাইটের বাইরে আছে তাদের যেন একটা সুযোগ হয়। জাতীয় দলে খেলা ক্রিকেটারদের সঙ্গে আমরা অনূর্ধ্ব-১৯ এর ক্রিকেটারদেরও দেখছি। আমাদের চারজনকে নিতে হবে, যাদের ‍দুইজন একাদশে খেলবে। তাই এটা গুরুত্বপূর্ণ।’

গত বছর আমিরাতের হয়ে অভিষেক হওয়া ২১ বছর বয়সী সঞ্চিত শর্মা বলেন, ‘টম মুডির মতো কোচের কাছে এসে নিজেকে মেলে ধরতে পারা আমাদের জন্য অনেক বড় সুযোগ। জীবনে এমন সুযোগ বারবার আসে না। টম মুডি আমার প্রিয় কোচ, আশা করি তার দলে সুযোগ পাব।’

আমিরাতের এই টি-টোয়েন্টি লিগ নিয়ে ভারতের সাবেক ক্রিকেটার ইরফান পাঠান বলেছেন, ‘আমিরাতকে অভিনন্দন তাদের নিজস্ব লিগের জন্য। আমি আশা করি এই টুর্নামেন্ট ইউএইর অনেক তরুণ ক্রিকেটারকে সুযোগ দেবে। এখানকার আবহাওয়া ভালো আর মাঠের সুযোগ-সুবিধাও দারুণ। ইউএই ক্রিকেটের অন্যতম পছন্দের গন্তব্য।’

টুর্নামেন্টে অংশ নেওয়া ছয়টি দল হলো—আবুধাবি নাইট রাইডার্স, ডেসার্ট ভাইপারস, দুবাই ক্যাপিটালস, গলফ জায়ান্টস, এমআই এমিরেটস ও শারজাহ ওয়ারিয়ার্স। শীর্ষ তারকাদের সঙ্গে আমিরাতের স্থানীয় ক্রিকেটারদের সুযোগ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে দলগুলো। খেলাগুলো দেখা যাবে বিশ্বের বিভিন্ন টিভি চ্যানেলেও।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com