নেদারল্যান্ডস যাবে বাংলালিংক ইনোভেটর্স ৬.০ এর বিজয়ী দল

আবেদনের শেষ তারিখ ২৭ অক্টোবর
বাংলালিংক ইনোভেটর্স ৬.০ এর ব্যানার।
বাংলালিংক ইনোভেটর্স ৬.০ এর ব্যানার। ছবি : সংগৃহীত

নিবন্ধন শুরু হয়েছে ‘বাংলালিংক ইনোভেটর্স ৬.০’ আসরের। এবারের আসরের চ্যাম্পিয়ন দল সুযোগ পাবে নেদারল্যান্ডসের আমস্টারডামে বাংলালিংকের মালিকানা প্রতিষ্ঠান ভিওনের প্রধান কার্যালয় পরিদর্শনের। প্রযুক্তিভিত্তিক উদ্ভাবনী পরিকল্পনা থাকলে এবারের আসরে আবেদন করা যাবে ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত। আজ মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয় টেলিকম অপারেটরটির পক্ষ থেকে।

এতে আরও জানানো হয়, আসরে থাকছে ১২ সপ্তাহব্যাপী বুট ক্যাম্প, গ্রুমিং, ওয়ার্কশপ এবং অন্যান্য প্রশিক্ষণ। প্রতিযোগিতা শেষে চার সদস্যবিশিষ্ট পাঁচটি দলকে বিজয়ী ঘোষণা করা হবে। সেরা তিনটি দল বাংলালিংকের ফ্ল্যাগশিপ স্ট্র্যাটেজিক অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রোগ্রামের অ্যাসেসমেন্ট সেন্টার রাউন্ডে সরাসরি অংশগ্রহণ করতে পারবে। প্রথম ও দ্বিতীয় রানার আপ দলের অংশগ্রহণকারীরা পাবে আকর্ষণীয় পুরস্কার। এ ছাড়া শীর্ষ পাঁচটি দলের সব সদস্য বাংলালিংকের অ্যাডভান্সড ইন্টার্নশিপ প্রোগ্রামে যোগ দিতে পারবেন।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, বাংলালিংক ইনোভেটর্স ৬.০ এ দেশের সৃজনশীল তরুণরা আধুনিক বিশ্বের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় তাদের প্রযুক্তিভিত্তিক উদ্ভাবনী পরিকল্পনা প্রদর্শনের সুযোগ পেয়ে থাকেন। এই আসর ১২ সপ্তাহজুড়ে বুট ক্যাম্প, গ্রুমিং, ওয়ার্কশপ এবং অন্যান্য প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দেশের সৃজনশীল সম্ভাবনাময় তরুণদের প্রতিভা এবং দক্ষতা বিকাশের সুযোগ দেবে।

শীর্ষ পাঁচটি দলের সব সদস্য বাংলালিংকের অ্যাডভান্সড ইন্টার্নশিপ প্রোগ্রামে যোগ দেওয়ার পাশাপাশি স্টার্টআপ ও করপোরেট অভিজ্ঞতা প্রদানের লক্ষ্যে পরিচালিত বিভিন্ন কার্যক্রমে অংশ নেওয়ারও সুযোগ পাবেন। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) স্বীকৃত যে কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী https://ennovators.banglalink.net ভিজিট করে নিবন্ধনের মাধ্যমে বাংলালিংক ইনোভেটর্সের ৬.০-এ অংশ নিতে পারবেন।

বাংলালিংক দেশের তরুণ প্রজন্মকে উদ্ভাবনে আগ্রহী করার প্রত্যয় নিয়ে ছয় বছর আগে ইনোভেটর্সের যাত্রা শুরু করে। এ উদ্যোগের মাধ্যমে আমরা পরিবর্তনে আগ্রহী হাজারো তরুণকে বর্তমানের বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ সম্পর্কে নতুনভাবে ভাবতে এবং সেগুলোর প্রযুক্তিভিত্তিক সমাধান নিয়ে আসতে উৎসাহ দিয়েছি।
মনজুলা মোরশেদ, বাংলালিংকের চিফ হিউম্যান রিসোর্সেস অ্যান্ড অ্যাডমিনিস্ট্রেশন কর্মকর্তা

মনজুলা মোরশেদ জানান, এ বছর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসগুলোতে ইনোভেটর্স নিয়ে আসতে পেরে তারা আনন্দিত। ফলে শিক্ষার্থীরা সরাসরি এ প্রতিযোগিতার বিভিন্ন অংশের অভিজ্ঞতা পাবে। এবারও আগের আসরগুলোর মতো সাফল্য কামনা করছেন তারা।

এর আগেও ইনোভেটর্সের প্রথম পাঁচটি আসরে সারা দেশ থেকে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ করতে দেখা গেছে।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com