গর্ভপাত সংক্রান্ত ভিডিও সরিয়ে ফেলছে ইউটিউব

ইউটিউব
ইউটিউবপ্রতীকী ছবি

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে গর্ভপাত নিষিদ্ধ হওয়ার পর, ইউটিউব তাদের প্ল্যাটফর্ম থেকে গর্ভপাত সংক্রান্ত বিভ্রন্তিমূলক ভিডিওগুলো সরিয়ে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) ইউটিউব নিজেই এই ঘোষণা দিয়েছে।

মার্কিন কংগ্রেসের কিছু সদস্য টেকনোলোজি জায়ান্ট গুগলকে বেশ চাপের ওপর রেখেছে, যাতে তারা তাদের সার্চ ইঞ্জিন থেকে গর্ভপাত করা যায় এমন ক্লিনিকগুলোর নাম সরিয়ে ফেলে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রায় ৫০ বছর ধরে গর্ভপাতকে নারীদের অধিকার হিসেবে গণ্য করে, এই বৈধতা প্রদান করা হয়েছিল। তবে চলতি বছরের জুনে, দেশটির সুপ্রিম কোর্ট রো বনাম ওয়েড কেসটির আগের রায়কে ওভারটার্ন করে নতুন রায় প্রদান করে, যার ফলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নিষিদ্ধ হয় গর্ভপাত।

এদিকে, গর্ভপাত সংক্রান্ত ভিডিও সরানোর বিষয়ে ইউটিউব বলছে, তারা শুধুমাত্র সেইসব ভিডিওগুলো নিজেদের সাইট থেকে সরিয়ে ফেলবে, যেগুলো ঘরে বসে কীভাবে গর্ভপাত করা যায়, এমন ধরনের নির্দেশনা প্রদান করে এবং ক্লিনিকগুলোতে কীভাবে গর্ভপাত করা হয় তা সম্পর্কে ভ্রান্তিমূলক ধারণা প্রদান করে।

আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই এই ভিডিওগুলো সরিয়ে ফেলা হবে বলে জানিয়েছে ইউটিউব।

গত মাসে গর্ভপাত সংক্রান্ত সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর, বেশ চাপেই পড়েছে বেশ কিছু টেকনোলোজি কোম্পানি এবং সোশ্যাল মিডিয়া সাইটগুলো। তাদের ওয়েবসাইট এবং নিউজফিড থেকে গর্ভপাতকে সমর্থন করে এমন সংবাদ এবং বিজ্ঞাপন সরিয়ে ফেলার জন্য বেশ চাপ প্রদান করছে যুক্তরাষ্ট্রের কর্তৃপক্ষ। তারা বলছে, এমন কোন সংবাদ বা বিজ্ঞাপন সোশ্যাল সাইটগুলোতে রাখা যাবে না, যা নারীদের স্বাস্থ্যখাতের জন্য ঝুঁকি বাড়ায়।

গত মাসেই গুগল এক ঘোষণায় জানিয়েছিল যে, আইনগত সমস্যা এড়ানোর লক্ষ্যে তারা সেইসব ব্যবহারকারীদের ইনফরমেশনগুলো মুছে ফেলবে, যারা গর্ভপাত করা যায় এমন ক্লিনিকগুলোতে যাচ্ছেন বা এই সংক্রান্ত কোনো কিছু গুগলে সার্চ করছেন।

অন্যদিকে, মার্কিন কংগ্রেসের কিছু সদস্য টেকনোলোজি জায়ান্ট গুগলকে বেশ চাপের ওপর রেখেছে, যাতে তারা তাদের সার্চ ইঞ্জিন থেকে গর্ভপাত করা যায় এমন ক্লিনিকগুলোর নাম সরিয়ে ফেলে।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com