স্পেসএক্সের চূড়ান্ত মূল্যায়নের সময় বাড়লো

স্পেসএক্সের স্টারশিপ মহাকাশযান
স্পেসএক্সের স্টারশিপ মহাকাশযানছবি সংগৃহীত।

প্রস্তাবিত স্পেসএক্স স্টারশিপ মহাকাশযান এবং টেক্সাসের বোকা চিকাতে সুপার হেভি রকেট প্রোগ্রামের চূড়ান্ত মূল্যায়ন শেষ করতে আগামী ১৩ জুন পর্যন্ত সময় বাড়িয়েছে ফেডারেল এভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফএএ)। মঙ্গলবার (৩১ মে) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানায় মার্কিন সংবাদ সংস্থা রয়টার্স।

এপ্রিলের শেষের দিকে সংস্থাটি জানায়, আগামী ৩১ মে রকেট প্রোগাম ও মহাকশযানের চূড়ান্ত মূল্যায়ন শেষ করা হবে। বর্তমানে এটি চূড়ান্ত প্রোগ্রাম্যাটিক এনভায়রনমেন্টাল অ্যাসেসমেন্ট জারি করার দিকে কাজ করছে।

সংস্থাটি আরও বলছে, এপ্রিলে স্পেসএক্স অ্যাপ্লিকেশেনে কিছু পরিবর্তন এনেছে যা এফএএ বর্তমানে পর্যবেক্ষণ করছে।

গত ফেব্রুয়ারিতে ইলন মাস্ক জানান, স্পেসেএক্সের মহাকাশযান নিয়ে তিনি প্রবল আত্মবিশ্বাসী। তার নতুন স্পেসএক্স স্টারশিপ, চাঁদ এবং মঙ্গল গ্রহে ভ্রমণের জন্য ডিজাইন করা হয়েছে। এই বছর প্রথমবারের মতো এই মহাকাশযান পৃথিবীর কক্ষপথে পৌঁছাবে।

তিনি আরও বলেন, কোম্পানিটি তার পুরো স্টারশিপ প্রোগ্রামটি কেপ ক্যানাভেরাল, ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টারে স্থানান্তর করবে। স্পেসএক্স সেখানে ইতিমধ্যেই প্রয়োজনীয় পরিবেশগত অনুমোদন পেয়েছে। তবে স্থানান্তরের কারণে মহাকাশযান উৎক্ষেপণের সময় আরও ছয় থেকে আট মাস পেছানো হয়েছে। বিশ্বের প্রথম এই ব্যক্তিগত চন্দ্র মিশন যাত্রা ২০২৩ সালে উদ্বোধন করা হবে বলেও জানান ইলন মাস্ক।

এদিকে, গত নভেম্বরে শব্দ, কম্পন এবং অতিরিক্ত চাপের সম্ভাব্য প্রভাব সম্পর্কে সতর্ক করে "গুরুতর উদ্বেগ" উত্থাপন করে একটি চিঠি দিয়েছে টেক্সাস। একই সঙ্গে এফএএকে প্রতি বছর উৎক্ষেপণের সংখ্যা সীমিত করতে এবং সময় ও শর্ত সীমাবদ্ধ করতে বলা হয়েছে।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com