চাঁদ রক্তিম লাল হয় কেন?

ব্লাড মুন।
ব্লাড মুন।পুরোনো ছবি

মহাজগতে প্রায় কিছু বিরল ঘটনা ঘটে থাকে যা নিয়ে কৌতুল জাগে মানুষের মনে। তার মধ্যে অন্যতম হলো ব্লাড মুন বা রক্তিম চাঁদ। এ সময় আকাশে রক্তিম লাল কিংবা কমলা রঙের চাঁদ দেখা যায়। চাঁদের এই বিরল অবস্থা মূলত চন্দ্রগ্রহণের কারণে হয়ে থাকে।

জানা গেছে, যখন চাঁদ আর সূর্যের মাঝখানে পৃথিবী অবস্থান করে সেই অবস্থাকে চন্দ্রগ্রহণ বলা হয়। এসময় পৃথিবী আলোর উৎস বন্ধ করে দেয় এবং চাঁদের পিঠে পৃথিবীর ছায়া দেখা যায়। মূলত পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণের সময় ব্লাড মুন হয়ে থাকে। এ সময় চাঁদ ও সূর্য পৃথিবীর দুই পাশে ঠিক এক লাইনে অবস্থান করে। এসময় পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলের মধ্যে দিয়ে সূর্যরশ্মি প্রবাহিত হয় এবং বায়ুমণ্ডল থেকে সূর্যের নীল রশ্মির বেশিরভাগ অংশ শোষিত হয়। ফলে চাঁদের রং কমলা দেখায়। চাঁদের এই অবস্থার নাম দেওয়া হয়েছে ব্লাডমুন।

প্রতীকী ছবি

আন্তর্জাতিক মহাকাশচারী কংগ্রেসের একটি প্রশিক্ষণ পুস্তিকায় জানানো হয়, চাঁদের ব্যাসের চেয়ে পৃথিবীর ব্যাস চারগুণ বড়। এ কারণে পৃথিবীর ছায়ার পরিধিও অনেক বেশি। পুরো চন্দ্রগ্রহণের প্রক্রিয়া অনেক লম্বা সময় ধরে চলার কারণে ব্লাড মুন ১০৪ মিনিট পর্যন্ত স্থায়ী হতে পারে।

উল্লেখ্য, আগামী ৪ নভেম্বর উত্তর আমেরিকা, হাওয়াইন দ্বীপ, পূর্ব এশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, নিউ জিল্যান্ড এবং পূর্ব অস্ট্রেলিয়া থেকে দেখা যাবে বছরের শেষ চন্দ্রগ্রহণ। এদিনও চাঁদকে হালকা লাল রঙের দেখা যাবে। একে বলা হয় পেনাম্ব্রা চন্দ্রগ্রহণ।

এর আগে, সর্বশেষ গত ১৬ মে উত্তর এবং দক্ষিণ আমেরিকাসহ ইউরোপ এবং এশিয়ার কিছু অংশ থেকে এই ব্লাডমুন চন্দ্রগ্রহণ দেখা গেছে।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com