মৃত্যুর ২৮ বছর পর শেয়ারের অর্থ পাচ্ছেন জাহানারা ইমাম

মৃত্যুর ২৮ বছর পর শেয়ারের অর্থ পাচ্ছেন জাহানারা ইমাম

মৃত্যুর ২৮ বছর পর ‘শহীদ জননী’ জাহানারা ইমাম শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করা শেয়ার ও লভ্যাংশের অর্থ ফিরে পাচ্ছেন। জাহানারা ইমামের পক্ষে তার ছোট ছেলে সাইফ ইমাম জামীর শেয়ার ও লভ্যাংশের অর্থ গ্রহণ করবেন। লভ্যাংশসহ বিনিয়োগকৃত শেয়ারের মূল্য দাঁড়িয়েছে প্রায় দেড় লাখ টাকা।

আগামীকাল মঙ্গলবার রাজধানীর একটি হোটেলে আনুষ্ঠানিকভাবে এই অর্থের চেক তুলে দেবেন শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলাম। শেয়ারবাজার স্থিতিশীল তহবিলের (সিএমএসএফ) চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন।

মৃত্যুর ২৮ বছর পর শেয়ারের অর্থ পাচ্ছেন জাহানারা ইমাম
বড় উত্থানেও ফ্লোর প্রাইসে ফেরা কোম্পানির ছড়াছড়ি!

সিএমএসএফ সূত্রে জানা গেছে, দেশ স্বাধীন হওয়ার পর ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) তালিকাভুক্ত কোম্পানি ‘দ্য ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেড’-এর বেশ কিছু শেয়ারে বিনিয়োগ করেছিলেন জাহানারা ইমাম। বর্তমানে কোম্পানিটি ওভার দ্য কাউন্টার মার্কেটে (ওটিসি) রয়েছে। বর্তমানে প্রতি শেয়ারের দাম ১১০ টাকা। জাহানারা ইমাম ৬৫ বছর বয়সে ১৯৯৪ সালে মারা যান।

সিএমএসএফ জানায়, জাহানারা ইমামের বিনিয়োগ করা শেয়ার এবং ১৯৯৩ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত সময়ে শেয়ারের লভ্যাংশের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে এক লাখ ৪২ হাজার ৪১০ টাকা, যা গত ২৮ বছর কোম্পানিটির কাছে ছিল।

মৃত্যুর ২৮ বছর পর শেয়ারের অর্থ পাচ্ছেন জাহানারা ইমাম
বাংলাদেশের শেয়ারবাজার ভালোভাবে কাজ করছে না : বিএসইসি সাবেক চেয়ারম্যান

কোম্পানিটির পক্ষে এখন অর্থ পরিশোধ করছে শেয়ারবাজার স্থিতিশীল তহবিল (সিএমএসএফ)। দ্য ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেড সেই অর্থ সিএমএসএফ ফান্ডে জমা দিয়েছে।

জাহানারা ইমাম ছিলেন একজন বাংলাদেশি লেখিকা, কথাসাহিত্যিক, শিক্ষাবিদ এবং একাত্তরের ঘাতক দালাল বিরোধী আন্দোলনের নেত্রী। বাংলাদেশে ‘শহীদ জননী’ হিসেবে তিনি পরিচিত। তার বিখ্যাত গ্রন্থ ‘একাত্তরের দিনগুলি’।

একাত্তরে তার জ্যেষ্ঠ পুত্র শাফী ইমাম রুমী দেশের মুক্তিসংগ্রামে অংশ নেন এবং কয়েকটি সফল গেরিলা অপারেশনের পর পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর হাতে গ্রেপ্তার হন এবং পরে নির্যাতনের শিকার হয়ে শহীদ হন।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com