বলিভিয়ায় বই পড়লেই মিলবে কারামুক্তি!

বলিভিয়ার জেলে বই হাতে কারাবন্দী।
বলিভিয়ার জেলে বই হাতে কারাবন্দী। ছবি: সংগৃহীত

কারাবন্দীদের সংশোধনের জন্য দক্ষিণ আমেরিকার দেশ বলিভিয়ায় ‘বুকস বিহাইন্ড বার' নামের একটি প্রকল্প চালু করেছে দেশটির সরকার। এ প্রকল্পের আওতায় দেশটির মোট ৪৭টি কারাগারে খোলা হয়েছে লাইব্রেরি। আর এখানে বই পড়ার বিনিময়ে টাকা ও কারামুক্তিসহ কারাবন্দীদের তিন ধরনের পুরস্কার দেওয়া হয়।

জানা গেছে, বলিভিয়াতে মৃত্যুদণ্ডের বিধান নেই। তবে সেখানে বিচারপ্রক্রিয়া অতি মন্থর এবং দীর্ঘ হওয়ায় বিচার শেষ হতে হতে জীবন শেষ হয়ে যায় অনেকের। এতে শাস্তির মেয়াদ শেষ করে মুক্ত জীবনে ফেরা যেন সৌভাগ্যের বিষয়। তাই এই ধরনের প্রকল্প হাতে নিয়েছে দেশটির সরকার। এখন পর্যন্ত ৮৬৫ জন কয়েদি এ প্রকল্পের আওতায় রয়েছেন।

জ্যাকুলিন নামের একজন কারাবন্দী জানান, এই প্রকল্পের মাধ্যমে নিরক্ষর ব্যক্তিরা পাচ্ছেন ‘নতুন জীবন’ শুরুর সুযোগ। এতে বর্ণমালার সঙ্গে পরিচিত হয়ে এবং বই পড়তে শিখে জীবনের নতুন অর্থ খুঁজে পাচ্ছেন অনেকেই। কারাবন্দীদের বিভিন্ন কাজের বিনিময়ে প্রতিদিন ৮ বলিভিয়ানো, অর্থাৎ বাংলাদেশি মুদ্রায় ১০১ টাকা করে দেয় কারা কর্তৃপক্ষ। সেই সঙ্গে বই পড়লে থাকছে শাস্তি মওকুফের বোনাস।

তিনি আরও বলেন, ৮৬৫ জন পাঠকের মধ্যে বই পড়ায় সবচেয়ে এগিয়ে জ্যাকুলিন। এক বছরে আটটি বই শেষ করেছেন তিনি। তবে শুধু বই পড়লেই হবে না, পরীক্ষায় পাস করলেই মিলে পুরস্কার। এ পর্যন্ত দেওয়া চারটি পরীক্ষাতেই পাস করেছেন জ্যাকুলিন।

এর আগে ২০১২ সালের জুন মাসে ব্রাজিলে এমন প্রকল্প চালু হয়। মূলত ব্রাজিলের বিচার ব্যবস্থাও বলিভিয়ার মতো মন্থর।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com