যুক্তরাষ্ট্রে পর পর তিন হামলা, নিহত ৯

অভিযুক্তদের একজনকে গ্রেপ্তার করছে পুলিশ।
অভিযুক্তদের একজনকে গ্রেপ্তার করছে পুলিশ। ছবি : সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় চীনা নববর্ষের উৎসবে হামলার পর আবারও বন্দুকধারীদের গুলি বর্ষনের ঘটনা ঘটেছে। তিনটি পৃথক হামলায় মৃত্যু হয়েছে অন্তত নয়জনের।

দেশটির আইওয়া প্রদেশের ডেস মোইনেস শহরের একটি যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে সোমবার হামলা করে বন্দুকধারীরা। কেন্দ্রে ঢুকে এলোপাতাড়ি গুলি চালাতে থাকে তারা। দুষ্কৃতীদের গুলিতে জখম হন দুই ছাত্রসহ তিন জন। তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক ছিল। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর ওই দুই ছাত্রের মৃত্যু হয়। এছাড়া গুরুতর জখম অবস্থায় আরেকজনের চিকিৎসা চলছে। ডেস মোইনেস পুলিশ জানিয়েছে, মৃতদের এখনও শনাক্ত করা যায়নি।

ঘটনার পর স্কুল থেকে পালিয়ে যায় দুষ্কৃতীরা। তাদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করে পুলিশ। পরে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে শহরের রাস্তায় একটি গাড়ি আটক করা হয়। সেখান থেকে তিনজন সন্দেহভাজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। স্কুলে হামলার নেপথ্যে তাদের যোগ থাকতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। গ্রেপ্তারকৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে খুঁটিনাটি তথ্য সংগ্রহ করছে পুলিশ।

অন্য দিকে, উত্তর ক্যালিফোর্নিয়ার হাফ মুন বে শহরে পৃথক দুটি হামলায় মৃত্যু হয়েছে মোট সাত জনের। আহত হয়েছেন আরও অনেকে। তারা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এই হামলার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে কয়েকজনকে গ্রেপ্তারও করেছে পুলিশ।

শনিবার রাতেই ক্যালিফোর্নিয়াতে অনুরূপ হামলা হয়। ৭২ বছর বয়সী এক বন্দুকধারী মন্টেরে পার্কে চিনা নববর্ষ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে গিয়ে এলোপাতাড়ি গুলি চালায়। তার গুলিতে অন্তত ১০ জনের মৃত্যু হয়। আহত হন আরও অনেকে। পরে পুলিশ ঘিরে ফেললে নিজের শরীরে গুলি করে আত্মহত্যা করে ওই ব্যক্তি। তার পর ৪৮ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই আরও তিন হামলার খবর প্রকাশ্যে এল।

অভিযুক্তদের একজনকে গ্রেপ্তার করছে পুলিশ।
ওয়াগনার গ্রুপকে অপরাধী সংগঠন হিসেবে তালিকাভুক্ত করছে যুক্তরাষ্ট্র

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
logo
kalbela.com