শিনজো আবেকে শেষবারের মতো শ্রদ্ধা জানালো জাপানের জনগণ

শিনজো আবেকে বহনকারী শেষকৃত্যের গাড়ি।
শিনজো আবেকে বহনকারী শেষকৃত্যের গাড়ি।ছবি : রয়টার্স

আততায়ীর গুলিতে নিহত সাবেক প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবেকে শেষবারের মতো শ্রদ্ধা জানিয়েছে জাপানের জনগণ। মঙ্গলবার (১২ জুলাই) আবের মৃতদেহ বহনকারী গাড়িটি জাপানের রাজধানী টোকিওর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থান প্রদক্ষিণ করে যখন কিরিগায়া ফিউনারেল হলের দিকে যাচ্ছিলো, তখন রাস্তার দুপাশে ছিল হাজারো মানুষের ঢল, যারা জাপানের দীর্ঘতম সময় প্রধানমন্ত্রী পদে থাকা শিনজো আবের প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানাতে এসেছিল।

প্রসঙ্গত, গত ৮ জুলাই আততায়ীর গুলিতে নিহত হন ৬৭ বছর বয়স্ক শিনজো আবে। তিনি সেদিন জাপানের নারা শহরে এক নির্বাচনী সভায় বক্তৃতা করছিলেন।

মঙ্গলবার (১২ জুলাই) তার দাফন উপলক্ষে সমস্ত জাপান জুড়ে দেশটির পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয়েছিল। এদিন সকাল বেলা জোজোজি টেম্পলে শুধুমাত্র পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতিতে একটি শেষকৃত্য অনুষ্ঠিত হয়। পরে তার মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় তার নিজ দল লিবারেল ডেমোক্র্যাটিক পার্টির অফিসে, সেখান থেকে জাপানের প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে। সেখানে উপস্থিত ছিলেন জাপানের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদা এবং অন্যান্য কর্মকর্তাগণ।

পরে তার মৃতদেহ নিয়ে যাওয়া হয় জাপানের পার্লামেন্ট ভবনে, যেখানে আবে প্রথম একজন আইনপ্রণেতা হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেছিলেন। এরপর তার শেষকৃত্যের জন্য আবের মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় কিরিগায়া ফিউনারেল হলে, সেখানেই আকে দাফন করা হয়।

মঙ্গলবার (১২ জুলাই) আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী সেখানে প্রচুর বৃষ্টিপাত হওয়ার কথা ছিল। সেসব উপেক্ষা করেই সকাল থেকে রাস্তার দুইধারে জড়ো হতে থাকেন জাপানের নাগরিকগণ। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে রাস্তার দুইপাশে প্রায় ১০ হাজারেরও বেশি মানুষ উপস্থিত হন। অনেকের হাতে ছিল ফুলের তোড়া, অধিকাংশের চোখে ছিল জল। চোখের জলেই তারা বিদায় জানিয়েছেন তাদের প্রিয় নেতাকে, অনেকে সে সময় চিৎকার করে বলছিলেন, ‘আবে-সান, থ্যাংক ইউ সো মাচ।’

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com