ফিলিপাইনে শক্তিশালী ভূমিকম্পে নিহত ৪, আহত শতাধিক

ভূমিকম্পে হেলে পড়া একটি ভবনে উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছে দেশটির উদ্ধার কর্মীরা
ভূমিকম্পে হেলে পড়া একটি ভবনে উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছে দেশটির উদ্ধার কর্মীরাআল জাজিরা

দক্ষিণ-পশ্চিম এশিয়ার দেশ ফিলিপাইনের উত্তরাঞ্চলে ৭ দশমিক ১ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্পে চারজন নিহত ও অন্তত শতাধিক ব্যক্তি আহত হয়েছেন। ভূমিকম্পের কেন্দ্রস্থল রাজধানী ম্যানিলা থেকে ৪০০ কিলোমিটার দূরে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছেন কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে- আজ স্থানীয় সময় বুধবার সকাল ৮টা ৪৩ মিনিটে লুজনের প্রধান দ্বীপের আবরা প্রদেশে আঘাত হানে ভূমিকম্পটি। মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ (ইউএসজিএস) বলছে- ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৭ দশমিক ১।

তবে ফিলিপাইন ইনস্টিটিউট অব ভলকানোলজি অ্যান্ড সিসমোলজি (ফিভোলক্স) ও ভূমধ্যসাগরীয় সিসমোলজিক্যাল সেন্টার (ইএমএসসি) জানিয়েছে- এ মাত্রা ছিল ৭ দশমিক ৩।

ভূমিকম্পের সবচেয়ে বড় প্রভাব পড়েছে লুজন দ্বীপে। তবে অনেক দূরের ম্যানিলাতেও বাড়িঘর কেঁপে উঠেছে। সুরক্ষার কথা বিবেচনা করে সঙ্গে সঙ্গে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে।

৩০ সেকেন্ড বা তারও বেশি সময় ধরে ভূমিকম্প হয়েছে। আমার মনে হয়েছিল, আমার বাড়ি ভেঙে পড়ে যাবে। এখন আমরা দুর্গত মানুষের কাছে পৌঁছানোর চেষ্টা করবো। কিন্তু এখনো মাঝে মাঝেই আফটারশেক হচ্ছে। তাই আমাদের সাবধান থাকতে হচ্ছে।
ফিলিপাইনের কংগ্রেস-সদস্য এরিক সিঙ্গসন।

ভূমিকম্পে আবরা প্রভিন্সের একটি হাসপাতাল আংশিকভাবে ভেঙে পড়েছে। তবে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, তারা এখনো সেখান থেকে কোনো মৃত্যুর খবর পাননি।

প্রদেশটির লাগাঙ্গিলাং শহরের মেয়র রোভলিন ভিলামোর বলেছেন, ‘এখনও আফটারশক অনুভব করছি। অনেক ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে আমরা খবর পাচ্ছি।’

উল্লেখ্য, প্রশান্ত মহাসাগরীয় রিং অব ফায়ারে অবস্থানের কারণে ফিলিপাইনে প্রায়ই শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হানে। ১৯৯০ সালে দেশটির উত্তরাঞ্চলে ৭ দশমিক ৭ মাত্রার এক ভূমিকম্পে প্রায় দুই হাজার মানুষ প্রাণ হারিয়েছিলেন।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com