দিল্লিতে মাঙ্কিপক্সে শনাক্ত বেড়ে ৪

দিল্লিতে মাঙ্কিপক্সে শনাক্ত বেড়ে ৪

দিল্লিতে আরও একজনের শরীরে মাঙ্কিপক্স শনাক্ত হয়েছে। এতে রাজধানীতে মোট শনাক্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে চারজনে। সেইসঙ্গে পুরো ভারতে সংখ্যাটি ১১। দিল্লির বাইরে শুধু কেরালায় ভাইরাসটি শনাক্ত হয়েছে।

চতুর্থ ব্যক্তি একজন ৩১ বছর বয়সী নারী। সম্প্রতি তিনি বিদেশ ভ্রমণ করেছেন কি না তা জানা যায়নি।

সংবাদসংস্থা প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়া জানায়, ওই নারীর জ্বর আছে এবং ফুসকুড়ি দেখা দিয়েছে। তাকে লোক নায়ক জয় প্রকাশ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পরীক্ষার জন্য নমুনা পাঠানোর পর বুধবার (৩ আগস্ট) পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে।

এর আগে মঙ্গলবার (২ আগস্ট) দিল্লিতে ৩৫ বছর বয়সী এক বিদেশি নাগরিকের দেহে মাঙ্কিপক্স শনাক্ত হয়, যিনি সম্প্রতি দেশটির বাইরে কোথাও যাননি। তাকে রাষ্ট্রীয়ভাবে পরিচালিত এলএনজেপি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মাঙ্কিপক্স অন্য প্রাণীর শরীর থেকে মানুষে সংক্রমিত হয়েছে। এর লক্ষণ গুটিবসন্তের মতোই তবে তীব্রতা অনেক কম। লক্ষণগুলোর মধ্যে আছে জ্বর, শরীরে ফুসকুড়ি এবং ফুলে যাওয়া লিম্ফ গ্রন্থি। দুই থেকে চার সপ্তাহ পর এগুলো সেরে যায়।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

সোমবার (১ আগস্ট) মাঙ্কিপক্সে শনাক্ত হওয়া প্রথম ব্যক্তি সুস্থ হওয়ার পর এই হাসপাতাল ত্যাগ করেন।

অরবিন্দ কেজরিওয়ালের সরকার শহরের তিনটি বেসরকারি হাসপাতালকে মাঙ্কিপক্সের লক্ষণ আছে এবং শনাক্ত হয়েছে এমন রোগীদের জন্য আইসোলেশন ওয়ার্ড খোলার নির্দেশ দিয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা অনুযায়ী, মাঙ্কিপক্স অন্য প্রাণীর শরীর থেকে মানুষে সংক্রমিত হয়েছে। এর লক্ষণ গুটিবসন্তের মতোই তবে তীব্রতা অনেক কম। লক্ষণগুলোর মধ্যে আছে জ্বর, শরীরে ফুসকুড়ি এবং ফুলে যাওয়া লিম্ফ গ্রন্থি। দুই থেকে চার সপ্তাহ পর এগুলো সেরে যায়।

মাঙ্কিপক্সের লক্ষণ দেখা গেলে সংক্রমণ প্রতিরোধে আক্রান্ত ব্যক্তিকে আলাদা রাখা হয়। এই ক্ষেত্রে করোনা প্রতিরোধী নিয়ম যেমন, হাত ধোয়া, মাস্ক পরা ও স্যানিটাইজারের ব্যবহার কাজে দেয়।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com