তাইওয়ানের জলসীমায় চীনের ক্ষেপণাস্ত্র

তাইওয়ানের জলসীমায় চীনের ক্ষেপণাস্ত্র

তাইওয়ানকে ঘিরে ‘নজিরবিহীন’ সামরিক মহড়া শুরু করেছে চীন। দেশটির সমুদ্রসীমায় কয়েকটি ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়েছে চীনের সশস্ত্র বাহিনী। রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম এটিকে যুদ্ধ পরিকল্পনার অংশ হিসেবে উল্লেখ করেছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে আল-জাজিরা।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির তাইওয়ান সফর ঘিরে চরম উত্তেজনা চলছে। ন্যান্সির সফরের প্রতিক্রিয়া হিসেবেই চীনের এই সামরিক মহড়া বলে আল-জাজিরার প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম জানায়, আজ বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় দুপুরে তাইওয়ানের পার্শ্ববর্তী ছয়টি স্থানে এসব মহড়া চলানো হয়। আগামী রোববার পর্যন্ত এ মহড়া চলবে।

চীনের পূর্বাঞ্চলীয় থিয়েটার কমান্ডের মুখপাত্র সিনিয়র কর্নেল শি ইয়ে এক বিবৃতিতে জানান, মূল ভূখণ্ড থেকে চীনের রকেট নিয়ন্ত্রণকারী বাহিনী তাইওয়ানের পূর্বাঞ্চলীয় উপকূলের নির্ধারিত জলসীমায় বেশ কয়েকটি ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ে। এসব মিসাইল প্রচলিত ওয়ারহেড বহন করে বলেও জানান এ সামরিক কর্মকর্তা।

তিনি আরও জানান, মিসাইলগুলো নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রায় আঘাত করতে সক্ষম হয়েছে। মূলত মিসাইলগুলোর দক্ষতা ও অঞ্চলটিতে শত্রুপক্ষের আক্রমণের জবাব দিতে চীনের সশস্ত্র বাহিনী কতটা সক্ষম তা প্রদর্শন করতেই এ মহড়া।

তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় দুপুর ২টায় স্বশাসিত তাইওয়ানের উত্তর-পূর্ব ও দক্ষিণ-পশ্চিম অঞ্চলে ডংফেং-ক্লাস ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ে চীন। এর মধ্যে দুটি ক্ষেপণাস্ত্র তাইওয়ানের মাৎসু দ্বীপের কাছে আঘাত করে। আঞ্চলিক শান্তি বিনষ্ট করে চীনের এমন পদক্ষেপের নিন্দা জানিয়েছে তাইওয়ান।

বিশ্লেষকরা বলছেন, ভবিষ্যতে অঞ্চল দুটির যুদ্ধে জড়ানোর সম্ভবনা থেকেই এ মহড়া পরিচালনা করা হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে সতর্কাবস্থায় রয়েছে তাইওয়ানের সশস্ত্র বাহিনীও।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com