রোজা রাখা অবস্থায় দাঁত থেকে রক্তপাত বা ব্যথা হলে করণীয় কী?

রোজা রাখা অবস্থায় দাঁত থেকে রক্তপাত বা ব্যথা হলে করণীয় কী?
প্রতীকী ছবি

রোজা রাখা অবস্থায় দাঁতের গোড়া থেকে রক্ত পড়া অন্যতম একটি সমস্যা। একই সঙ্গে কারো কারো ব্যথাও হয়ে থাকে। তবে এসব সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ারও উপায় রয়েছে। দাঁতের গোড়া থেকে রক্তপাত বা ব্যাথা হলে করণীয় সম্পর্কে কালবেলার সঙ্গে একান্ত কথা বলেছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ওরাল অ্যান্ড ম্যাক্সিলোফেসিয়াল সার্জারি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও মুখমণ্ডল, চোঁয়াল ও দন্ত রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. রুমন বনিক।

রোজা রাখা অবস্থায় দাঁত থেকে রক্তপাত হলে করণীয় কী?

ডা. রুমন বনিক : ‍রোজা রাখা অবস্থায় দাঁত থেকে রক্তপাত হলে রোজার আগেই একজন ডেন্টাল চিকিৎসককে দেখিযে দাঁতের মুখগহ্বর পরীক্ষা করে নিতে হবে। যদি কোনো অসামঞ্জস্যতা পরিলক্ষিত হয়, তাহলে আগেই চিকিৎসা করে নেওয়া ভালো। অনেকের ক্ষেত্রে দাঁত এবং মাড়ির সংযোগস্থলে বিভিন্ন ধরনের পাথর হয়ে থাকে। এর ফলে মাড়ির অংশগুলোতে প্রদাহ তৈরি হয়। প্রদাহ তৈরি হলে রোজা শুরু হওয়ার আগেই স্কেলিং করে মাড়ির যত্ন নেওয়া উত্তম।

দাঁতের মাড়ির অংশগুলোতে প্রদাহ তৈরি হয়েছে স্কেলিং করা দরকার কিন্তু রোজা রাখতে হবে, ফলে স্কেলিং করা সম্ভব হচ্ছে না সেক্ষেত্রে করণীয় কী?

মাড়ির অংশগুলো স্কেলিং করা সম্ভব না হলে অবশ্যই ইফতার এবং সাহরির পর দাঁত ভালোভাবে ব্রাশ করতে হবে। দিনের বেলা না ঘুমানোর চেষ্টা করতে হবে এবং দাঁতের মাড়িতে যেন কোনোভাবে আঘাত না লাগে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। এছাড়া সাহরির সময় ভিটামিন সি যুক্ত খাবার খেতে হবে। এতে করে মাড়ির স্বাস্থ্য ভালো থাকবে। মাড়িতে প্রদাহ তৈরি হয়ে থাকলে তা কমে যাবে এবং রোজা রাখা অবস্থায় মাড়ি দিয়ে রক্ত পড়ার প্রবণতা কমে যাবে।

যাদের প্রায়শই দাঁতের ব্যথা হয় রোজা রাখা অবস্থায় তারা কীভাবে ব্যথামুক্ত থাকবেন?

প্রায়শই যাদের দাঁতের ব্যথা হয় সেই ব্যথাকে মেডিকেলের ভাষায় কর্ণিক পালপাইটিস বলা হয়। পালপাইটিস হলে নিশ্চিতভাবে ধরে নেওয়া হয় যে, কোনো না কোনো দাঁতের মজ্জাতে প্রদাহ রয়েছে। এরকম হলে চিকিৎসকরা কখনো কখনো সাময়িক ঘরোয়া টিপস দিয়ে থাকেন এবং পরবর্তীতে স্থায়ী চিকিৎসার জন্য দাঁতের চিকিসকের কাছে যাওয়ার পরামর্শ দেন।

রোজা রাখতে গিয়ে যদি তীব্র ব্যথায় প্রচণ্ড কাতর হওয়ার মতো অবস্থা তৈরি হয়। সেই সময় হালকা কুসুম গরম পানি মুখের মধ্যে দিয়ে ২-৪ মিনিট ধরে রাখলে ব্যথা ধীরে ধীরে কমে যাবে। পরে মুখ থেকে পানিটুকু ফেলে দিতে হবে। আবার অনেকের ক্ষেত্রে প্রায়শই ব্যথা হচ্ছে না, কিন্তু চট করে ব্যথা অনুভব করে। এরকম অবস্থা হরে ফ্রিজের ঠাণ্ডা পানি মুখে ধরে রাখলে ব্যথা সাময়িক সেরে যেতে পারে। পরবর্তীতে ওই ব্যথা যাতে না হয় সেজন্য নিকটস্থ দাঁতের চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে। ওই চিকিৎসক দাঁতের অবস্থা দেখে ব্যথার কারণ এবং অন্য বিষয়গুলো বিবেচনা করে যেটি সবচেয়ে ভালো হয় সেই চিকিৎসা প্রদান করবেন।

রোজা রাখা অবস্থায় দাঁতের ব্যথা হলে যারা মুখে ওযুধ বা পানি নিতে চান না তারা কী করবেন?

রোজা রাখা অবস্থায় দাঁতের ব্যথা হলে যারা মুখে ওষুধ বা পানি নিতে চান না তাদেরকে অবশ্যই ফ্লুরাইড যুক্ত টুথপেস্ট দিয়ে দাঁত ব্রাশ করতে হবে। মাউথওয়াশ করতে হবে। দাঁতে কোনো গর্ত তৈরী হলে কিংবা দুই দাঁতের মাঝখানে কোনো খাবারের কণা আটকে থাকলে অবশ্যই তা সাহরির সময় নিশ্চিত হতে হবে। এরপর ফ্লোচিং করে হোক বা টুথ ব্রাশ করে হোক সেগুলো বের করে ফেলতে হবে। তাহলে প্রায়শই যে দাঁতের ব্যথা হচ্ছিল তাহলে হয়তো সেটি কমে যাবে। এতে সাময়িক ভালো থাকা যাবে।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com