মাঝরাতেও ‘পাঠান’-এর শো

'পাঠান' সিনেমার পোস্টার।
'পাঠান' সিনেমার পোস্টার।ছবি : সংগৃহীত

বছরের প্রথম ব্লকবাস্টার। ছবি মুক্তির প্রথম দিনেই দর্শকের উন্মাদনা দেখেই পরিষ্কার, এই খেতাব মোটেই বাড়াবাড়ি নয়। বরং সময় যত এগোচ্ছে, শাহরুখ খানের ‘পাঠান’ নিয়ে উত্তেজনা আরও বাড়ছে। অগ্রিম টিকিট বুকিংয়ের সময়ই চালু করা হয়েছিল সকাল ৬টা ও ৭টার শো। এবার দর্শকের চাহিদা মেটাতে মধ্যরাতেও শো চালুর ভাবনা করছে প্রেক্ষাগৃহ কর্তৃপক্ষ।

২৫ জানুয়ারি মুক্তি পেয়েছে ‘পাঠান’। সপ্তাহের মাঝখানে, তাতেও সমস্যা নেই। দলে দলে লোক গিয়ে ভিড় জমিয়েছেন প্রেক্ষাগৃহের সামনে। চাহিদা এতটাই যে, ছবি মুক্তির দিন তিনেক আগে থেকেই টিকিটের জন্য চাতক পাখির মতো অপেক্ষা করে থাকতে হয়েছে দর্শককে। এবার তাদের কথা মাথায় রেখেই রাত সাড়ে ১২টায় ‘পাঠান’-এর শো চালু করার সিদ্ধান্ত নিল ছবির প্রযোজক ‘যশরাজ ফিল্মস’। শুধু মুম্বাইয়ে নয়, গোটা দেশে মধ্যরাতের শো চালুর ব্যবস্থা ওয়াইআরএফের।

দীর্ঘ চার বছরের অপেক্ষা শেষে রুপালি পর্দায় ফিরেছেন বলিউডের ‘বাদশা’। দর্শকের উন্মাদনা ও টিকিটের চাহিদা দেখে ছবি মুক্তির প্রথম দিনেই পর্দার সংখ্যা আরও বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয় গোটা দেশের একাধিক সিনেমা হল কর্তৃপক্ষ। ২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত ভারতে মোট ৫২০০টি পর্দায় ‘পাঠান’ প্রদর্শনের কথা ছিল। বুধবার প্রথম শোয়ের পরে আরও ৩০০টি পর্দা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয় কর্তৃপক্ষ। সারা ভারতে আপাতত মোট ৫৫০০টি পর্দায় দেখানো হচ্ছে ‘পাঠান’। বিদেশে এই সংখ্যাটা ২৫০০। বিশ্বজুড়ে মোট ৮০০০টি পর্দায় প্রদর্শিত হচ্ছে ‘বাদশা’র কামব্যাক।

২০ জানুয়ারি থেকে ছবির অগ্রিম টিকিট বুকিং শুরু হওয়ার পরেই আভাস পাওয়া গিয়েছিল ‘পাঠান’-ঝড়ের। খবর পাওয়া যায়, একশরও বেশি দেশে মুক্তি পেতে চলেছে যশরাজ ফিল্মস প্রযোজিত ‘স্পাই ইউনিভার্স’-এর এই অ্যাকশন থ্রিলার ছবি। শুধু তাই নয়, ‘পাঠান’-এর দৌলতেই ফের তালা খুলছে দেশের বন্ধ হয়ে যাওয়া ২৫টি সিঙ্গেল স্ক্রিন। এমনকি বাদশার ছবি ঘিরে উন্মাদনায় ৫ বছর পরে গেইটি-গ্যালাক্সি দু’জায়গাতেই ‘পাঠান’ প্রদর্শনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন প্রেক্ষাগৃহ মালিক মনোজ দেশাই।

মহামারি ও লকডাউনের পরবর্তী সময়ে বক্স অফিসে প্রায় মুখ থুবড়ে পড়েছিল বলিউড। ওটিটি প্ল্যাটফর্মের রমরমায় চাপা পড়ে গিয়েছিল বড় পর্দার আবেদন। মন্দা আর লোকসানের চোটে তালা পড়েছিল একাধিক প্রেক্ষাগৃহের দরজায়। এমন অবস্থায় দাঁড়িয়ে শাহরুখের ‘পাঠান’ ঘিরে এই উন্মাদনা যে বলিউড ইন্ডাস্ট্রিকে বেশ কিছুটা অক্সিজেন জোগাবে, তা নিয়ে কোনো সন্দেহের অবকাশ নেই।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
logo
kalbela.com