পাবিপ্রবির সাধারণ সম্পাদককেও অবাঞ্ছিত ঘোষণা, ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা।
পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা।ছবি : কালবেলা

নবগঠিত পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল্লাহকে রাজাকার পরিবারের সন্তান অ্যাখ্যায়িত করে তাকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা ও বিক্ষোভ মিছিল করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা। এ সময় তার পদত্যাগও দাবি করেছেন তারা।

আজ বুধবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাধীনতা চত্বর থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি শুরু হয়। মিছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান গেট ও ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে প্রশাসনিক ভবনের সামনে গিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

এ সময় নেতাকর্মীরা বলেন, ‘নুরুল্লাহর পুরো পরিবার রাজাকার। তার বাবা আব্দুল আলিম ও দাদা মহিরুদ্দিন মকাই ’৭১-এ মুক্তিযুদ্ধকালীন দেশবিরোধী কর্মকাণ্ডের জড়িত ছিল। ইতোমধ্যেই বিষয়টি নিয়ে পাবনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আ স ম আব্দুর রহিম পাকন, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক প্রকল্প কমান্ডার মো. আলী জব্বার, মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল ইসলাম, আব্দুর রাজ্জাকসহ ১৩ জন মুক্তিযোদ্ধা কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছিলেন। এরপরও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ তার মতো বিতর্কিত ব্যক্তিকে সাধারণ সম্পাদক বানিয়েছে, যা খুবই দুঃখজনক।

তারা আরও বলেন, ‘পাবিপ্রবির ত্যাগী নেতাকর্মী এই বিতর্কিত সাধারণ সম্পাদককে মানতে পারছে না, মানবে না। তাকে সমস্ত নেতাকর্মীরা অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছে। অবিলম্বে তাকে পদত্যাগ করতে হবে। না হলে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাকে ক্যাম্পাসে প্রতিহত করবে।’

এর আগে মঙ্গলবার রাতে নবগঠিত পাবনা জেলা ছাত্রলীগের কমিটির সাধারণ সম্পাদক মীর রবিউল ইসলাম সীমান্তকেও অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেন পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা। অবিলম্বে তাকে বহিষ্কার করা না হলে তাকেও পাবনায় প্রতিহতের ঘোষণা দিয়েছেন তারা।

উল্লেখ্য, গত সোমবার পাবনা জেলা ছাত্রলীগ এবং পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে এই দুটি ইউনিটের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়।

এতে ৫ সদস্যবিশিষ্ট জেলা কমিটিতে সভাপতি পদে মিজানুর রহমান সবুজ ও সাধারণ সম্পাদক পদে মীর রবিউল ইসলাম সীমান্তকে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। আর ১৯ সদস্যের কমিটিতে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কমিটিতে সভাপতি করা হয়েছে ফরিদুল ইসলাম বাবুকে, সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে মো. নূরুল্লাহকে।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com