মোহসীন-উল হাকিমের কাছে জলদস্যুদের সঙ্গে কাজের অভিজ্ঞতা শুনলেন ড্যাফোডিলের শিক্ষার্থীরা

কর্মশালায় সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থীরা ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান মোহসীন-উল হাকিমকে।
কর্মশালায় সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থীরা ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান মোহসীন-উল হাকিমকে।ছবি : আফজাল হাদী

শিক্ষার্থীদের তথ্যনির্ভর সাংবাদিকতায় দক্ষ করে তুলতে ড‍্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সাংবাদিকতা, মিডিয়া ও যোগাযোগ বিভাগের উদ্যোগে ‘ইনভেস্টিগেটিভ রিপোর্টিং’ শীর্ষক কর্মশালা হয়েছে। কর্মশালায় প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক মোহসীন-উল হাকিম।

আজ বুধবার দুপুর ১২টার দিকে আশুলিয়ার ড্যাফোডিল স্মার্ট সিটিতে এই কর্মশালা হয়। ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে যমুনা টেলিভিশনের বিশেষ প্রতিবেদক মোহসীন-উল হাকিম বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিয়ে কর্মশালা শুরু করেন। ওই সময় তিনি সুন্দরবনের জলদস্যুদের নিয়ে কাজের অভিজ্ঞতা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনা করেন।

সাংবাদিকতার গুরুত্ব তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘নীতি-নৈতিকতার দিকে নজর দিয়ে আগামীর গণমাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ জায়গাগুলো তোমরাই দখল করবে। তোমাদের হাত ধরেই উন্নত গণমাধ্যম ও সাংবাদিকতায় ঐক্যের জয়সূর তৈরি হবে।’

কর্মশালার বিষয়ে সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী সানজিদা হোসেইন বলেন, ‘যেই মানুষটা সুন্দরবনে শান্তি ফেরালেন সেই মানুষটার সামনে থেকে সেই অভিজ্ঞতা শুনতে পারা সৌভাগ্যের বিষয়। আমি এমন আয়োজনের জন্য সাংবাদিকতা বিভাগের প‍্রতি কৃতজ্ঞ।’

কর্মশালা সম্পর্কে জানতে চাইলে সাংবাদিকতা, মিডিয়া এবং যোগাযোগ বিভাগের শিক্ষার্থী আবু নওফেল সাজিদ বলেন, ‘এই কর্মশালা থেকে আমি অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা সম্পর্কে অনেক ধারণা পেয়েছি এবং আমি বিশ্বাস করি ভবিষ্যতে সাংবাদিকতা পেশায় কাজ করতে গেলে এই কর্মশালাটি আমার অনেক কাজে আসবে।’

অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার এ কর্মশালার শুরুতে সাংবাদিকতা, মিডিয়া এবং যোগাযোগ বিভাগের সিনিয়র লেকচারার রাশেদ রাতুল উপস্থিত সবাইকে শুভেচ্ছাবার্তা জানান এবং সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থীরা ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়ে মোহসীন-উল হাকিমকে বরণ করে নেন।

ওই সময় উপস্থিত ছিলেন—ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ফ্যাকাল্টি অব হিউম্যান অ্যান্ড সোশ্যাল সায়েন্সের ডিন প্রফেসর এ এম এম হামিদুর রহমান, বিশ্ববিদ্যালয়ের স্ট্র্যাটেজেটিক অ্যাডভাইজর অ্যান্ড প্রফেসর উজ্জ্বল কে চৌধুরী, সাংবাদিকতা, মিডিয়া ও যোগাযোগ বিভাগের বিভাগীয় প্রধান আফতাব হোসাইন, ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মাহবুব পারভেজসহ অনেকে।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com