২০২২-২৩ অর্থবছরের বিকল্প বাজেট প্রস্তাব অর্থনীতি সমিতির

বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আবুল বারকাত।
বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আবুল বারকাত।ছবি: সংগৃহীত

চলতি অর্থবছরের বাজেটের চেয়ে ৩.৪ গুণ বৃদ্ধি করে আগামী ২০২২-২৩ অর্থবছরের জন্য ২০ লাখ ৫০ হাজার ৩৬ কোটি টাকার বিকল্প বাজেট প্রস্তাব করেছে দেশের অর্থনীতিবিদদের সংগঠন বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতি।

রোববার (২২ মে) রাজধানীর স্কাটনে বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির অডিটোরিয়ামে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ বাজেট উপস্থাপন করেন সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আবুল বারকাত।

বিকল্প বাজেটকে ‘জনগণতান্ত্রিক বাজেট’ বলে আখ্যায়িত করে তিনি বলেন, বিকল্প বাজেটে রাজস্ব আয় ধরা হয়েছে ১৮ লাখ ৭০ হাজার ৩৬ কোটি এবং ঘাটতি থাকবে ১ লাখ ৮০ হাজার কোটি টাকা। এতে প্রত্যক্ষ করের ওপর জোর দেওয়ার পাশাপাশি কালো টাকা উদ্ধার ও পাচার করা অর্থ ফিরিয়ে বাজেট ঘাটতি পূরণের কথা বলা হয়েছে।

সমিতির সভাপতি বলেন, ‘বিকল্প বাজেটে সবচেয়ে বেশি ব্যয় বরাদ্দ করা হয়েছে সামাজিক নিরাপত্তায়। এই খাতে ব্যয় ধরা হয়েছে ২১.৪ শতাংশ। এছাড়া শিক্ষা ও প্রযুক্তি খাতে ১১.৮ শতাংশ, কৃষি খাতে ৯ শতাংশ, জনপ্রশাসন খাতে ৮.২ শতাংশ ও স্বাস্থ্য খাতে ৭.৭ শতাংশ ব্যয় বরাদ্দ করার প্রস্তাব করেছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘এই বাজেটের মধ্য দিয়ে অর্থনৈতিক, সম্পদ, স্বাস্থ্য ও শিক্ষা বৈষম্য দূর করা সম্ভব। আমরা এই চার বৈষম্যকে ধরে বিকল্প বাজেট প্রস্তাব করেছি। শিক্ষা, প্রশিক্ষণ, স্বাস্থ্য সেবা ও কর্মসংস্থান বাবদ আগামী ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটে প্রতিবন্ধী মানুষের জীবন মান উন্নয়নে আমরা দুই হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ করার প্রস্তাব করছি।’

আবুল বারাকাত বলেন, ‘আমাদের বাজেট সম্প্রসারণশীল বাজেট। আমাদের বাজেটের মূল লক্ষ্য আগামী ১০ বছরের মধ্যে দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষকে মধ্যবিত্ততে রুপান্তর করা। দেশজ অর্থনীতিকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া। আমরা গবেষণা ও বিজ্ঞান চর্চা অধিক গুরুত্ব দিয়েছি।’

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com