লোকসানের বোঝা নিয়ে নর্থ বেঙ্গল সুগার মিলে আখ মাড়াই শুরু

নর্থ বেঙ্গল সুগার মিলস লিমিটেড।
নর্থ বেঙ্গল সুগার মিলস লিমিটেড।ছবি : কালবেলা

৬৫ কোটি টাকা লোকসানের বোঝা মাথায় নিয়ে মাত্র ৪৬ কর্মদিবসের লক্ষ্যমাত্রায় নর্থ বেঙ্গল সুগার মিলের ৯০তম আখ মাড়াই মৌসুম ২০২২-২০২৩ উদ্বোধন হতে যাচ্ছে।

আগামীকাল শুক্রবার মাড়াই মৌসুমের উদ্বোধন করবেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিল্প মন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহামুদ এমপি। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার, নাটোর-১ আসনের এমপি শহিদুল ইসলাম বকুল, শিল্প মন্ত্রনালয়ের সচিব জাকিয়া সুলতানা।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প করপোরেশনের চেয়ারম্যান (গ্রেড-১) মো. আরিফুর রহমান অপু।

চিনিকলসূত্রে জানা যায়, চলতি মৌসুমে ১ লাখ ৪০ হাজার মেট্রিক টন আখ মাড়াই করে ৯ হাজার ৮০০ মেট্রিকটন চিনি উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। চিনি আহরণের হার ধরা হয়েছে শতকরা ৭ ভাগ। মিল এলাকায় আখ চাষের পরিমাণ প্রায় ১৮ হাজার ১০০ একর। এর মধ্যে মিলের নিজস্ব জমি রয়েছে ৫৭৫ একর।

উত্তরবঙ্গ চিনিকল আখ চাষি সমিতির সভাপতি ইব্রাহিম খলিল কালবেলকে বলেন, কর্তৃপক্ষের অদূরদর্শিতার কারণে মিলটি বন্ধের উপক্রম হয়েছে। চলতি মৌসুমে আবহাওয়া অনূকুলে থাকলেও প্রায় মাস খানেক দেরিতে মাড়াই শুরু করায় রবিশস্য আবাদের জন্য জমি তৈরি করতে চাষিরা অবাধে পাওয়ার ক্রাশারে আখ সরবরাহ করতে বাধ্য হয়েছেন। রেকর্ড পরিমাণ আখ সরবরাহ করার কারণে মিলটিকে এবছরও লোকসানের হিসাব গুনতে হবে।

মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আনিসুল আজম বলেন, বিগত বছরগুলোতে ব্যাপক লোকসান থাকলেও চলতি রোপন মৌসুমে চাষিদের উৎসাহিত করে রেকর্ড পরিমাণ জমিতে আখ রোপনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, মিলের নিজস্ব ফার্মগুলো দীর্ঘদিন লোকসান দিলেও এখন লাভের মুখ দেখতে শুরু করেছে। এ বছর কারখানায় বিভিন্ন যন্ত্রাংশ মেরামত কাজে সাশ্রয় করা হয়েছে ২০ লাখ টাকা। মিল এলাকার প্রায় ১৮ হাজার আখচাষি সাতটি সাবজোনের মাধ্যমে ৩২টি কেন্দ্রে এবং মিলগেটে আখ সরবরাহ করেন। গত মৌসুমে কৃষকদের আখ ক্রয়ের অর্থ শিওরক্যাশের মাধ্যমে পরিশোধ করা হলেও এবছর ডাচ বাংলা এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে আখের মূল্য পরিশোধ করা হবে।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com