‘বঙ্গবন্ধু হত্যার পর দেশের সংখ্যালঘু পরিবার দিশেহারা হয়ে পড়েছিল’

নেত্রকোনা জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে কথা বলছেন অধ্যাপক ড. চন্দ্রনাথ পোদ্দার।
নেত্রকোনা জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে কথা বলছেন অধ্যাপক ড. চন্দ্রনাথ পোদ্দার। ছবি : কালবেলা

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. চন্দ্রনাথ পোদ্দার বলেছেন, বঙ্গবন্ধু হত্যার পর এ দেশের সংখ্যালঘু পরিবারগুলো দিশেহারা হয়ে পড়েছিল। কারণ বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর পর বাংলাদেশের ধর্ম নিরপেক্ষতার বিষয়টি অন্যান্য সরকার ভুলে গিয়েছিল। তবে বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর বঙ্গবন্ধুর ধর্ম নিরপেক্ষতার যে চেতনা সেটি বাস্তবায়ন হচ্ছে।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যার পর এ দেশ আবার পাকিস্তানি মতাদর্শে ফিরে যেতে চেয়েছিল। পৃথিবীর কোনো রাষ্ট্রে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের সংগঠন নেই। প্রত্যেক দেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায় স্বাধীনভাবে তাদের ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান পালন করতে পারে। শুধু এই বাংলাদেশে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষের সংগঠন করতে হয়। এটা বাঙালি জাতি ও এই দেশের রাজনীতিবিদদের জন্য লজ্জার বলেও মন্তব্য করেন পূজা উদযাপন পরিষদের এই নেতা।

আজ শুক্রবার নেত্রকোনা জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে জেলা শহরের শ্রী শ্রী নরসিংহ জিউর আখড়া নাটমন্দির প্রাঙ্গণে প্রধান বক্তার বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

নেত্রকোনা জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জ্ঞানেশ চন্দ্র সরকারের সভাপতিত্বে সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা অসীত সরকার সজল, সাবেক উপমন্ত্রী আরিফ খান জয়, সাবেক সংরক্ষিত সংসদ সদস্য অপু উকিল, পূজা উদযাপন পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি পূরবী মজুমদার, কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বাবুল দেবনাথ, সাংগঠনিক সম্পাদক কিশোর কুমার বসু রায়, প্রচার সম্পাদক প্রকৌশলী রতন দত্ত, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান সংরক্ষণ সম্পাদক নারায়ণ সাহা অপু, সহ-আন্তর্জাতিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট তপন চক্রবর্তী, জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক লিটন চন্দ্র পণ্ডিত প্রমুখ।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com