শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় রেখে নির্বাচনের কথা বলবেন না : গয়েশ্বর

সমাবেশে গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।
সমাবেশে গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।ছবি : কালবেলা

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, নির্বাচন নিয়ে কোনো প্রস্তুতি বিএনপির প্রয়োজন নেই। শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় রেখে এদেশে কোনো নির্বাচনের কথা বলবেন না। বর্তমান সরকারকে হটিয়ে নির্বাচন করা গেলে দেশের জনগণ আর যাই হোক নৌকায় ভোট দেবে না।

আজ বুধবার ‘২৫ জানুয়ারি গণহত্যা দিবস’ উপলক্ষে বরিশাল জেলা ও মহানগর বিএনপির উদ্যোগে আয়োজিত সমাবেশে প্রধান অতিথি হয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

সমাবেশে গয়েশ্বর রায় মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী বাংলাদেশে রাষ্ট্রপতি শাসিত শাসন ব্যবস্থায় সিরাজ সিকদারকে হত্যা ও জহির রায়হানের গুম হওয়ার ইতিহাস তুলে ধরেন। কীভাবে বাকশাল গঠিত হয় ও একনায়কতন্ত্র চালু হয় তার বিশদ বিবরণ তুলে ধরে ওই সময়ের দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকা পড়ার কথা বলেন।

তিনি বলেন, এগুলো আমার বানানো কথা নয়, দৈনিক ইত্তেফাকে প্রকাশিত সত্য। যার প্রমাণ আজও রয়েছে।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ বারবার সংবিধানের দোহাই দিচ্ছে। তারা কতবার তা পরিবর্তন করেছে? আওয়ামী লীগ নিজেই তো ৭২ সংবিধানে থাকে নাই। তাই সংবিধান পরিবর্তন কোনো অপরাধ নয়। নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনেই নির্বাচন হতে হবে।

বরিশালের সদর রোডে অশ্বিনী কুমার টাউন হল সংলগ্ন এলাকায় গণহত্যা দিবস ও ১০ দফা দাবি বাস্তবায়নে দেশব্যাপী বিএনপির কেন্দ্রীয় কর্মসূচির আওতায় এ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক মনিরুজ্জামান ফারুক।

সমাবেশে গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।
সরকার হটাতে আন্দোলনের বিকল্প নেই : গয়েশ্বর

এদিকে সমাবেশ শুরুর পরপরই কেন্দ্রীয় নেতাদের সামনেই তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে চেয়ার ছোড়াছুড়ি করে ছাত্রদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরা। এ সময় মঞ্চ থেকে স্লোগান তুলে তা থামানোর চেষ্টা করা হয়। তাতেও না হলে মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব মীর জাহিদুল কবির জাহিদ ও যুবদলের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল হাসান জাহান মঞ্চ থেকে নেমে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

এর আগে বেলা ১১টায় সমাবেশ শুরু হলে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা দেন কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক বিলকিস জাহান শিরীন, সহসাংগঠনিক সম্পাদক আকন কুদ্দুসুর রহমান ও উত্তর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবুল হোসেন খান, এইচ এম তসলিম উদ্দিন, খান মোহাম্মদ আনোয়ারসহ যুবদল, ছাত্রদল ও শ্রমিকদলের নেতারা।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
logo
kalbela.com