বেনাপোল বন্দরে বেড়েছে খাদ্যদ্রব্যের আমদানি

খাদ্যদ্রব্য নিয়ে বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করছে ট্রাক।
খাদ্যদ্রব্য নিয়ে বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করছে ট্রাক।ছবি : কালবেলা

দেশে নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যদ্রব্যের ঘাটতি মেটাতে ও রমজানে সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতে বেনাপোল বন্দর দিয়ে খাদ্যদ্রব্যের আমদানি বেড়েছে। প্রতিদিন প্রায় ১০০ ট্রাক বিভিন্ন প্রকারের খাদ্য পণ্য আমদানি হচ্ছে। এমন অবস্থা চলতে থাকলে রমজানে খাদ্য পণ্য স্বাভাবিক থাকবে এমনটাই মনে করছেন আমদানি বাণিজ্যিক সংশ্লিষ্টরা।

এ ছাড়া আমদানিকারকদের সহযোগিতা বাড়াতে সরকার দেশের বিভিন্ন বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে নির্দেশ দিয়েছে।

জানা গেছে, ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধে গোটা বিশ্ব যখন মন্দা অবস্থায় চলছে সেই বিরূপ প্রভাব পড়েছে দেশেও। তবে এ মন্দার মধ্যে যাতে দেশ খাদ্য ঘাটতির কবলে না পড়ে এবং সামনে রমজানের মধ্যে যাতে নিত্যপণ্যের সরবরাহ স্বাভাবিক থাকে সে জন্য আমদানিকারকদের বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে এলসি খোলার জন্য সহযোগিতার নির্দেশনা দেয় সরকার। এতে ব্যাংক এলসির সুবিধা বাড়ানোয় আমদানির পরিমাণ বেড়েছে। অন্যান্য সময় খাদ্য দ্রব আমদানির পরিমাণ দিনে ৫০ ট্রাক হলেও বর্তমানে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০০ ট্রাকের কাছাকাছি। ভারত থেকে আমদানিকৃত খাদ্যদ্রব্যের মধ্যে রয়েছে চাল, ডাল, চিনি, গম, ভুট্টা, পেঁয়াজ, আপেল, টমেটো, আঙুর, কমলা ও ডালিম। এতে নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যের বাজার স্থিতিশীল থাকবে বলে মনে করছেন বিক্রেতা ও ক্রেতা সাধারণ।

এ প্রসঙ্গে বেনাপোল স্থলবন্দরের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক, আব্দুল জলিল জানান, আমদানিকৃত খাদ্যদ্রব্য যাতে দ্রুত বন্দর থেকে খালাস দেওয়াসহ সব ধরনের সহযোগিতা করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে বেনাপোল উদ্ভিদ সংগনিরোধ কেন্দ্রের উপপরিচালক সুব্রত কুমার চক্রবর্তী বলেন, আমদানিকৃত খাদ্যদ্রব্য রোগ, জীবাণুযুক্ত কিনা তা পরীক্ষা করে বন্দর থেকে আমরা ছাড়পত্র দিচ্ছি।

বেনাপোল কাস্টম, চেকপোস্ট কার্গো শাখা সূত্রে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারত থেকে ৬৫ ট্রাকে বিভিন্ন ধরনের খাদ্যদ্রব্য আমদানি হয়েছে।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
logo
kalbela.com