৩ জেলায় বন্যার আশঙ্কা, দৌলতদিয়ায় ফেরি চলাচল বন্ধ

উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে ৮১টি নদীর পানি
পানিতে ডুবে গেছে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ৫নং ফেরিঘাট।
পানিতে ডুবে গেছে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ৫নং ফেরিঘাট।ছবি: সংগৃহীত

টানা বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে কুশিয়ারা ও সুরমার পর এবার উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে যমুনা, ব্রহ্মপুত্র, পদ্মাসহ দেশের ৮১টি নদীর পানি। এতে দেশের বিভিন্ন জেলার বন্যার পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে। এছাড়া, আগামী দুই-তিনদিনের মধ্যে উত্তরের উজানের জেলাগুলোতেও বন্যার আশঙ্কা করছে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র।

এদিকে পদ্মা ও যমুনা নদীর পানি বাড়ার কারণে তলিয়ে গেছে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ৫ নং ফেরিঘাট। এতে ৫ নং ফেরিঘাটের সংযোগ সড়কসহ পন্টুনের এক-তৃতীয়াংশ রয়েছে পানির নিচে। ফলে দুর্ঘটনা এড়া‌তে এ ঘাট দি‌য়ে যানবাহন পারাপার বন্ধ রেখেছে ঘাট কর্তৃপক্ষ। এ কারণে দৌলতদিয়া প্রান্তে সৃষ্টি হয়েছে তীব্র যানজট।

অন্যদিকে, শুক্রবার (২০ মে) সকালে সুনামগঞ্জের নদ-নদীর পানি বিপৎসীমার ২০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। বন্যাকবলিত হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন এই জেলার পাঁচটি উপজেলার মানুষ। বন্যার পানিতে সর্বস্ব হারিয়ে অনেকে পরিবার নিয়ে আশ্রয় কেন্দ্রে উঠেছেন। একই অবস্থা বিরাজ করছে সিলেটে। সপ্তাহব্যাপী বন্যায় পানিতে ভাসছে সিলেটের ১৩ উপজেলা ও সিলেট নগরী। সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলার অমলশিদ এলাকায় সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর উৎসস্থলের একটি নদী প্রতিরক্ষা বাঁধ ভেঙে গেছে। ভারতের বরাক নদ থেকে প্রবল বেগে পানি এখন সুরমা ও কুশিয়ারা নদীতে গিয়ে ঢুকছে।

ভুক্তভোগীরা বলছেন, বন্যার পানিতে তাদের বাড়িঘর দোকানপাট ও ফসল ভেসে গেছে। ঘরবাড়ি হারিয়ে অনেক মানুষ অর্ধাহারে দিন কাটাতে হচ্ছে তাদের।

পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে, নদীগুলোর ধারণ ক্ষমতা অস্বাভাবিক কমে যাওয়ায় এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হচ্ছে।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com