৩৫ বছরের চলাচলের রাস্তা বন্ধ, অবরুদ্ধ তিন পরিবার

রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ায় অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে আজিজুর রহমানের পরিবার।
রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ায় অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে আজিজুর রহমানের পরিবার।ছবি : কালবেলা

লক্ষ্মীপুর পৌরসভার বাঞ্চানগর এলাকায় চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ায় অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে তিনটি পরিবার। ভুক্তভোগীরা জানিয়েছেন, রাস্তাটি তারা ৩৫ বছর ধরে ব্যবহার করে আসছিলেন। গত বধুবার তাদের প্রতিবেশী রেদোয়ান ভুঁইয়া রানা ওই জমি নিজের দাবি করে বাঁশ ও টিনের বেড়া দিয়ে রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছেন।

রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ায় পরিবারগুলো দুদিন ধরে অবরুদ্ধ অবস্থায় রয়েছে। অন্য বাড়ির ভেতর দিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে তাদের। বিষয়টি নিয়ে গত বুধবার সদর মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী আজিজুর রহমান।

রানার বিরুদ্ধে স্থানীয় একাধিক ব্যক্তির জমি জোরপূর্বকভাবে দখলের অভিযোগও রয়েছে।

টিনের বেড়া দিয়ে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে চলাচলের রাস্তা।
টিনের বেড়া দিয়ে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে চলাচলের রাস্তা। ছবি : কালবেলা

রাস্তা বন্ধের প্রতিবাদ করায় আজিজুর রহমানকে হত্যার হুমকি দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি।

ভুক্তভোগীরা জানান, বুধবার বিকালে হঠাৎ করে রানাসহ তার পরিবারের সদস্যরা রাস্তার মুখে টিনের বেড়া দেন। রাতে কাজ থেকে ফিরে আজিজ টিনের বেড়ার কারণে বাড়িতে ঢুকতে পারেননি। পরে স্থানীয়দের পরামর্শে তিনি জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯-এ ফোন দিলে সদর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। এ সময় পুলিশ থানায় লিখিত অভিযোগ দেওয়ার পরামর্শ দেয়। অভিযোগ পেয়ে পুলিশ ফের গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে রানাকে বারবার অনুরোধ করার পরও তিনি পথ খুলে দেননি।

রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ায় অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে আজিজুর রহমানের পরিবার।
চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে সরকারি খাস জমিতে ঘর, ভোগান্তিতে ৭ পরিবার

আজিজুর রহমান বলেন, ‘৩৫ বছর ধরে আমরা রাস্তাটি ব্যবহার করছি। হঠাৎ রানা নিজের জমি দাবি করে রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছেন। কাজ থেকে ফিরে আমি বাড়িতে ঢুকতে পারিনি। পরে অনেক কষ্টে বাড়িতে ঢুকেছি। রাস্তা বন্ধ থাকায় আমরা বাড়ি থেকে বের হতে পারছি না। অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছি। ছেলে-মেয়েকে স্কুলে পাঠাতে পারছি না।’

তিনি আরও বলেন, ‘রাস্তাটি আমি ইট দিয়ে সংস্কার করেছিলাম। আমার এক ছেলে প্রতিবন্ধী। তাকে স্কুলে আনা-নেওয়া করতে আমার খুব কষ্ট হয়। এ ছাড়া এখন রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ায় পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছি।’

অভিযুক্ত রেদোয়ান ভূঁইয়া রানা বলেন, ‘অনেক বছর দয়া দেখিয়ে তাদের হাঁটার জন্য জমিটি উন্মুুক্ত রেখেছি। এখন আর সুযোগ দেওয়া সম্ভব না। আমার জমিতে আমি বেড়া দিয়েছি।’

লক্ষ্মীপুর শহর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ জহিরুল আলম বলেন, ‘আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে রানাকে অনুরোধ করেছি, কিন্তু তিনি রাস্তা খুলে দিতে রাজি হননি।’

লক্ষ্মীপুর (সদর) পৌরসভার মেয়র মোজাম্মেল হায়দার মাসুম ভূঁইয়া জানান, ভুক্তভোগীদের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ পেলে বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com