হিমালয় জয়ের আনন্দে ভাসছে স্বপ্নার গ্রাম

নারী ফুটবলার সিরাত জাহান স্বপ্না।
নারী ফুটবলার সিরাত জাহান স্বপ্না।ছবি : সংগৃহীত

নেপালের মাটিতেই স্বাগতিকদের ৩-১ গোলে হারিয়ে বাংলাদেশ সাফ চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় খুশিতে ভাসছে রংপুরের সদ্যপুষ্করিণী ইউনিয়নের পালিচড়া গ্রামের বাসিন্দারা। এই গ্রামের মেয়ে সিরাত জাহান স্বপ্নার জোড়া গোলে ভারতকে ৩-০ গোলে হারায় বাংলাদেশ। পাকিস্তানের বিপক্ষেও এক গোল দেন তিনি। তবে ভুটানের জালে এক গোল দেওয়ার ১২ মিনিটের মাথায় ইনজুরি নিয়ে মাঠ ছাড়েন স্বপ্না।

বাংলাদেশ দলের সাফল্যের সঙ্গে স্বপ্নার স্বপ্ন জড়িয়ে ছিল। সেই স্বপ্ন সত্যি হওয়ায় খুশিতে ভাসছে স্বপ্নার পরিবার। ম্যাচ জয়ের পরে পালিচড়ার মানুষ আনন্দে নেচে-গেয়ে অভিনন্দন জানান স্বপ্নার বাবা-মা ও কোচ মিলন মিয়াকে।
নারী ফুটবলার সিরাত জাহান স্বপ্না।
ট্রফি হাতে আগামীকাল দেশে ফিরবেন সাবিনারা

স্বপ্নার মা লিপি বেগম জানান, ২০১১ সাল থেকে ফুটবলের সঙ্গে জড়িয়ে আছে স্বপ্না। গত রোববার রাতে সে ফোনে সবার কাছে দোয়া চেয়েছে, দল যাতে জিততে পারে। তার স্বপ্ন সফল হয়েছে। মেয়ের ও দেশের সাফল্যে তারা সবাই খুশি।

স্বপ্নার বাবা মোক্তার আলী বলেন, ‘আমাদের তিন মেয়ের মধ্যে দুজনের বিয়ে হয়েছে। স্বপ্না সবার ছোট। আমার মেয়ে যে দলে খেলেছে, সেই দল আজ সাফ গেমসে চ্যাম্পিয়ন। রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীসহ সবাই দলকে অভিনন্দন জানাচ্ছেন। গর্বে বুকটা ভরে যাচ্ছে।’

শিরোপা হাতে নারী ফুটবল দলের  উদযাপন।
শিরোপা হাতে নারী ফুটবল দলের উদযাপন।ছবি : সংগৃহীত

সদ্যপুষ্করিণী যুব স্পোর্টিং ক্লাব এএফসির ‘বি’ লাইসেন্সধারী কোচ মিলন মিয়া বলেন, ‘বাংলাদেশ তথা স্বপ্নার সাফল্যে আমি খুব খুশি। ফাইনালে স্বপ্নাকে মাঠে নামানো হয়েছিল। ইনজুরির কারণে কিছুক্ষণ পরে তাকে তুলে নেওয়া হয়। স্বপ্না ভারত, পাকিস্তান ও ভুটানের বিপক্ষে মোট চারটি গোল করেছে। তার এই সাফল্যে পালিচড়া গ্রাম তথা রংপুরবাসী খুবই আনন্দিত।’

নারী ফুটবলার সিরাত জাহান স্বপ্না।
শুধু শিরোপা নয়, যোগ হয়েছে পরাশক্তির তকমাও

রংপুর নগরী থেকে প্রায় ১৫ কিলোমিটার দূরের গ্রাম পালিচড়া। এর অবস্থান সদর উপজেলার সদ্যপুষ্করিণী ইউনিয়নে। এখানে একসময় ছেলেদের খেলাধুলাই ছিল দুঃস্বপ্ন। সেখানে মেয়েরা ফুটবলে দেশসেরা হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে বেশ কয়েকবার। বর্তমানে পালিচড়ার বেশ কজন নারী ফুটবলার উন্নত প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। জাতীয় পর্যায়ে সদ্যপুষ্করিণী যুব স্পোর্টিং ক্লাব নারী খেলোয়াড় তৈরিতে অবদান রাখছে। যা এরই মধ্যে দেশবাসীর নজর কাড়তে সক্ষম হয়েছে।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com