সাবিনাকে কাছে পেয়ে বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস সাতক্ষীরার মানুষের

সাতক্ষীরায় পৌঁছেছেন বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন।
সাতক্ষীরায় পৌঁছেছেন বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন।ছবি : কালবেলা

দক্ষিণ এশিয়া জয় করে দেশে ফেরার পর সাতক্ষীরায় নিজ বাড়িতে গিয়েছেন বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক ও স্ট্রাইকার সাবিনা খাতুন। সাফজয়ী ক্যাপ্টেনকে কাছে পেয়ে বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন জেলার সর্বস্তরের মানুষ।

আজ শুক্রবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে একটি কালো রঙের প্রাইভেটকারে করে সাতক্ষীরা সার্কিট হাউসের সামনে পৌঁছান সাবিনা। এ সময় ফুলেল শুভেচ্ছা ও বর্ণিল শোভাযাত্রায় তাকে বরণ করেন স্থানীয়রা।

এরপর একটি ছাদখোলা পিকআপে ওঠেন তিনি। নারী ফুটবল দলের অধিনায়ককে দেখতে সাতক্ষীরা-যশোর সড়কে নামে জনতার ঢল। সড়কের দুই ধারে দাঁড়িয়ে থাকা হাজারো মানুষ তাকে দুই হাত নেড়ে অভিনন্দন জানান। পরে সাতক্ষীরা সার্কিট হাউস মোড় থেকে শহরের সঙ্গীতা মোড় হয়ে পাকাপুল, টাউন স্পোর্টিং ক্লাব ঘুরে নিউমার্কেট মোড়ে গিয়ে থামে পিকআপটি। সেখান থেকে নিজ বাড়িতে ফিরে যান সাবিনা।

সাতক্ষীরাসহ দেশবাসীর ভালোবাসায় আজ বাংলাদেশ নারী ফুটবল টিম বিজয় উল্লাস করতে পারছে। এ জন্য বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সাবলীল সহযোগিতা আমাদের উদ্দীপ্ত করেছে। বিশেষ করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের সার্বক্ষণিক খোঁজ-খবর নিতেন। তিনি আমাদের সব সময় প্রেরণা দিচ্ছেন। আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে কৃতজ্ঞ। আগামীতে আমরা প্রধানমন্ত্রীর প্রেরণা ও দেশবাসীর ভালোবাসায় এগিয়ে যাব ইনশাআল্লাহ।
সাবিনা খাতুন, বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক

শহর ঘোরার আগে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন সাবিনা খাতুন। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের এ বিজয় দেশবাসীর প্রতি উৎসর্গ করছি। বাবা বেঁচে থাকলে তিনি আজ সবচেয়ে বেশি খুশি হতেন। আমার প্রয়াত শিক্ষাগুরু আকবর আলীর কাছে চিরকৃতজ্ঞ।’

এ সময় সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসন ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার পদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে ভোর ৫টার দিকে রাজধানী ঢাকা থেকে নিজ বাড়িতে পৌঁছান সাবিনা। পরে প্রয়াত বাবা সৈয়দ আলী ও গুরু আকবর আলীর প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com