রাবি শিক্ষকের ছেলের গাড়ির ধাক্কায় গুরুতর আহত ছাত্রী

রাবি শিক্ষকের ছেলের গাড়ির ধাক্কায় দুমড়ে-মুচড়ে যায় প্রাইভেট কার ও রিকশা।
রাবি শিক্ষকের ছেলের গাড়ির ধাক্কায় দুমড়ে-মুচড়ে যায় প্রাইভেট কার ও রিকশা।ছবি : কালবেলা

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রপ সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি বিভাগের অধ্যাপক খায়রুল ইসলামের ছেলের প্রাইভেট কারের ধাক্কায় এক ছাত্রী গুরুতর আহত হয়েছেন। গত রোববার বিকেলে মহানগরীর বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন পশ্চিম বুধপাড়া এলাকার চৌরাস্তার মোড়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রী ও রিকশাচালকের পা ভেঙে যায়। বর্তমানে তারা রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন‌।

জানা যায়, অভিযুক্ত অধ্যাপক খায়রুল ইসলামের ছেলে মো. নিয়াসিরের (১৭) ছিল না কোনো ড্রাইভিং লাইসেন্স এবং তিনি উচ্চ মাধ্যমিকে পড়াশোনা করেন।

আহত ছাত্রীর নাম আয়েশা খাতুন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের ছাত্রী। তিনি পরিবারের সঙ্গে রাজশাহী নগরীর বুধপাড়া এলাকায় বসবাস করেন। এ ছাড়া আহত রিকশাচালকের নাম মো. সিটু মোল্লা।

আজ মঙ্গলবার সকালে দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা এম তারেক নূর। তিনি বলেন, ‘এ ঘটনায় আহত ছাত্রীর চিকিৎসার দেখভাল করছি। প্রাইভেট কারের মালিক রিকশাচালকের চিকিৎসার দেখভাল করছেন।’

আহত আয়েশার সহপাঠীরা জানায়, সে ব্যাটারিচালিত রিকশায় করে তার বাসায় যাচ্ছিল। রাস্তা পার হ‌ওয়ার সময় প্রাইভেট কারের সঙ্গে ধাক্কা লাগে রিকশার। এতে গুরুতর আহত হন রিকশাচালক ও আয়েশা।

এ ছাড়া তাদের দুজনেরই পা ভেঙে গেছে এবং শরীরের অন্যান্য জায়গায় গুরুতর আঘাত পেয়েছেন বলে প্রাথমিকভাবে জানিয়েছেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।

মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার আলী তুহিন বলেন, ‘প্রাইভেট কার এবং রিকশাটি আমাদের হেফাজতে রয়েছে। এখন পর্যন্ত কোনো পক্ষই মামলা করেনি।’

এ বিষয়ে ক্রপ সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি বিভাগের অধ্যাপক মো. খায়রুল ইসলামের মোবাইলে একাধিকবার কল করা হলে তিনি রিসিভ করেননি‌।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com