যুবদল নেতা শাওনের দাফন সম্পন্ন

শাওনের মরদেহ দেখার জন্য আত্মীয়স্বজন ও বন্ধুরা লাশবাহী গাড়ির পাশে ভিড় জমান।
শাওনের মরদেহ দেখার জন্য আত্মীয়স্বজন ও বন্ধুরা লাশবাহী গাড়ির পাশে ভিড় জমান।ছবি : কালবেলা

মুন্সীগঞ্জে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনায় নিহত যুবদল নেতা শহিদুল ইসলাম শাওনের (২৭) দাফন সম্পন্ন হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার রাত ১০টা ২৫ মিনিটে গ্রামের বাড়ি সদর উপজেলার মিরকাদিম মুরমা এলাকার জামে মসজিদ ঈদগাহ মাঠে জানাজা শেষে স্থানীয় সামাজিক কবরস্থানে তার মরদেহ সমাহিত করা হয়।

শাওনের মরদেহ দেখার জন্য আত্মীয়স্বজন ও বন্ধুরা লাশবাহী গাড়ির পাশে ভিড় জমান।
জানাজা শেষে যুবদল নেতা শাওনকে বিএনপির ফুলেল শ্রদ্ধা

এর আগে শাওনের মরদেহ ঢাকা থেকে রাত সাড়ে ৮টার দিকে নিজ বাড়িতে পৌঁছায়। মরদেহ পৌঁছানোর পর মা, বাবা, স্ত্রী, দাদি, ভাই ও স্বজনদের কান্নায় হৃদয় বিদারক পরিবেশের সৃষ্টি হয়। শোকে স্তব্ধ হয়ে পড়ে পুরো এলাকা। স্বজনদের আহাজারি-আর্তনাদে ভারি হয়ে ওঠে পরিবেশ। মরদেহ এক নজর দেখার জন্য সব আত্মীয়স্বজন ও বন্ধুরা লাশবাহী গাড়িতে আছড়ে পড়েন।

নিহত শাওনের পরিবারের সঙ্গে দেখা করে শোকসন্তপ্ত পরিবারকে সান্ত্বনা দেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

নিহত শাওনের পরিবারের সঙ্গে দেখা করে শোকসন্তপ্ত পরিবারকে সান্ত্বনা দেন রুহুল কবির রিজভী।
নিহত শাওনের পরিবারের সঙ্গে দেখা করে শোকসন্তপ্ত পরিবারকে সান্ত্বনা দেন রুহুল কবির রিজভী।ছবি : কালবেলা

রিজভী সাংবাদিকদের বলেন, ‘গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলনে শাওনের আত্মত্যাগ বৃথা যাবে না। সব হত্যাকাণ্ডের বিচার করা হবে। শাওন জীবন দিয়েছেন দেশের জন্য, গণতন্ত্রের জন্য। সুতরাং, জনগণের পক্ষে, দেশের পক্ষে ও গণতন্ত্রের পক্ষে তার আত্মদান দেশবাসী ভুলবে না।’ বিএনপি শাওনের ছেলে ও পরিবারের দায়িত্ব নেবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

চার ভাই ও এক বোনের মধ্যে শাওন সবার বড়। গত বছর বিয়ে করেন তিনি। তার ঘরে আট মাসের এক সন্তান রয়েছে। শাওন অটোরিকশা চালিয়ে সংসার চালাতেন বলে জানা গেছে।

গত বুধবার বিকেলে মুন্সীগঞ্জের সদর উপজেলার মুক্তারপুর পুরোনো ফেরিঘাট এলাকায় বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। এতে শাওনসহ অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়। আহতদের মধ্যে পুলিশ, সাংবাদিকসহ বেশ কয়েকজন বিএনপি নেতাকর্মীও রয়েছেন।

এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত দুটি মামলায় মোট ২৬ জনকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। পুলিশ ও শ্রমিক লীগের দুই মামলায় ৩৬৫ জনের নাম উল্লেখসহ এক হাজার ৩৬৫ জনকে আসামি করা হয়েছে।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com