বাড়ি লিখে না দেওয়ায় নিজের মাকে কালা জাদু করে হত্যাচেষ্টা

নারায়ণগঞ্জ।
নারায়ণগঞ্জ।ম্যাপ

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় কালা জাদু করে নিজের মাকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে ছেলে ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে। গতকাল সোমবার রাতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক লাইভে এসে ঘটনার শিকার ফেরদৌসী আক্তার রেহানা তার ছেলে মো. লিমন ও তার স্ত্রী কল্পনা আক্তারের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ করেন।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে রেহানা তার ছেলে ও ছেলের স্ত্রীসহ চারজনের বিরুদ্ধে ফতুল্লা মডেল থানায় নিজের জীবনের সংশয় প্রকাশ করে একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন।

রেহানা ফতুল্লার সস্তাপুর এলাকার মৃত সুলতান মিয়ার মেয়ে। মায়ের কাছ থেকে পাওয়া ৩ শতাংশ জমিতে তিনতলা বাড়ি করে সেখানেই বসবাস করেন তিনি। তিনি বাংলাদেশ মানবাধিকার কাউন্সিল জেলা শাখার সদস্য।

রেহানা বলেন, তার একমাত্র ছেলে লিমন ও তার স্ত্রী আল্পনা দীর্ঘদিন ধরে তার বাড়িটি তাদের দুজনের নামে লিখে দিতে চাপ প্রয়োগ করে আসছিল। বাড়ি লিখে না দেওয়ায় আল্পনা তার নানানানির কুপরামর্শে তাকে কালা জাদু করেছে। বিষয়টি তাৎক্ষণিক বুঝতে না পারলেও কয়েকদিন ধরে অসুস্থতা বোধ করছিলেন রেহানা।

তিনি জানান, গত সোমবার রাত ১০টায় মানবাধিকার সংগঠনের নেতৃবৃন্দ তার অসুস্থতার খবর পেয়ে তাকে দেখতে আসেন। ওই সময় লিমন হঠাৎ তার ওপর চড়াও হয়। ওই সময় সংগঠনের লোকজন লিমনকে ধরে ঘর থেকে বের করে দেয়। লিমনের জামার পকেট থেকে আরবি লেখা একটি কাগজ মাটিতে পড়ে যেতে দেখেন তারা। পরে লিমনের কক্ষে থাকা একটি জুতার বাক্সের ভেতর কালা জাদুতে ব্যবহৃত হয় এমন নানা সামগ্রী দেখতে পান।

বিষয়টি রেহানা তাৎক্ষণিক জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-এ ফোন করে পুলিশকে জানান। একই সময় স্থানীয় মসজিদের ইমামদের তার বাসায় ডেকে আনেন। পুলিশ এলে তাদের উপস্থিতিতে মসজিদের ইমাম জানান এসব দিয়ে রেহানাকে কালা জাদু করা হয়েছে। ফলে তিনি ধীরে ধীরে অসুস্থ হয়ে মারা যাবেন।

ফতুল্লা মডেল থানার উপপরিদর্শক (এএসআই) মো. শামীম বলেন, লিমনকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছে। তিনি স্বীকার করেছেন তার মাকে সে ও তার স্ত্রী মিলে কালা জাদু করেছেন।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com