চাঁদপুরে স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রী হত্যার অভিযোগ

প্রতীকী ছবি।
প্রতীকী ছবি।

চাঁদপুর সদর থানার দক্ষিণ বালিয়া এলাকায় এক গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার স্বামী আলমগীর শেখের বিরুদ্ধে। শুক্রবার (২০ মে) রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে মারা যান তিনি।

নিহতের পরিবারের অভিযোগ, কোহিনুরের এর আগে একবার বিয়ে হয়েছিল। পরে সেখান থেকে ছাড়াছাড়ি হলে আলমগীর শেখের সঙ্গে বিয়ে হয়। বিভিন্ন সময়ে আলমগীর তাকে নির্যাতন করতেন। এর আগেও এসব বিষয় নিয়ে কয়েকবার পারিবারিকভাবে মীমাংসা করা হয়। তার স্বামী আলমগীর তাকে বিষ খাইয়ে হত্যা করেছে কিংবা মানসিক নির্যাতন করে তাকে গভীর রাতে বিষপানে আত্মহত্যা করতে বাধ্য করা হয়েছে বলে দাবী করেন কোহিনুরের পরিবার।

নিহতের চাচাতো ভাই মনির হোসেন বলেন, ‘আলমগীর শেখ জানায়, “রাতে পানি পিপাসা লাগলে আমার বোন ধানের পোকা মারা ওষুধ পানি মনে করে খেয়ে ফেলেন।” তবে তার পিপাসা লাগলে ফ্রিজ থেকে কিংবা কলস থেকে পানি পান করার কথা। তিনি তো ছোট না যে টাইগারের বোতলে পানি মনে করে বিষ খেয়ে ফেলবেন। আমি মনে করি আমার বোনকে হত্যা করা হয়েছে।’

অভিযোগ অস্বীকার করে নিহতের স্বামী আলমগীর শেখ বলেন, ‘বুধবার (১৮ মে) রাতে আমার স্ত্রীর পিপাসা লাগলে পানি মনে করে ধানের পোকা মারার ওষুধ খেয়ে অচেতন হয়ে পড়েন। পরে আমরা তার পরিবারকে খবর দেই। এরপর তার ভাইসহ চাঁদপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে আসি। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য চাঁদপুর থেকে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। এরপর ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। পরে শনিবার (২১ মে) সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ ঢামেক হাসপাতালের মর্গে পাঠায় শাহবাগ থানা পুলিশ। আমি মনে করি এটা একটা দুর্ঘটনা।’

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com