একমাত্র সড়কের বেহাল দশা, দুর্ভোগে সাত গ্রামের মানুষ

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে আঞ্চলিক সড়কে তৈরি হয়েছে ছোট-বড় গর্তের।
সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে আঞ্চলিক সড়কে তৈরি হয়েছে ছোট-বড় গর্তের। ছবি : কালবেলা

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটিতে যাতায়াতের একমাত্র সড়কের বেহাল দশা। শুধু হাসপাতাল নয়, সাত গ্রামের মানুষ এ রাস্তা দিয়ে চলাচল করেন। তবুও দীর্ঘদিন ধরে সাড়ে ৩ কিলোমিটার দীর্ঘ রাস্তাটি সংস্কারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কোনো উদ্যোগ নেই বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।

তাদের অভিযোগ, রাস্তাটির বেহাল দশায় হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা মানুষ, বিশেষ করে অন্তঃসত্ত্বা, জরুরি অপারেশন ও দুর্ঘটনার শিকার রোগী আনা-নেওয়া খুবই কষ্টকর হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ ছাড়াও যখন তখন ঘটছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা। সড়কটির পাশে ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় এবং সড়কের দুপাশের বাড়িগুলো অধিক উঁচু হওয়ায় সামান্য বৃষ্টিতেই রাস্তায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে। এ কারণে রাস্তা দিয়ে হেঁটে চলাচল করাও দিনকে দিন কষ্টসাধ্য হয়ে পড়ছে। দীর্ঘদিন রাস্তাটি সংস্কার না করায় বাড়ছে জনদুর্ভোগ।

সড়কটির বিভিন্ন স্থানে পিচ ও খোয়া উঠে গেছে। ছোট-বড় অসংখ্য খানাখন্দ সৃষ্টি হয়েছে। সামান্য বৃষ্টিতেই সড়কে জমছে পানি। এর ওপর দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে রিকশাসহ ভারী যানবাহন।

সরেজমিনে দেখা গেছে, শাহজাদপুর দিলরুবা বাসস্ট্যান্ড থেকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পর্যন্ত এলজিইডির সড়কটির বেহাল দশা।

স্থানীয়রা জানান, এমন অবস্থা হলেও সংস্কার করার কোনো উদ্যোগ নেয়নি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। এতে রাস্তা দিয়ে চলাচলকারী রোগী ও স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীসহ পোতাজিয়া ইউনিয়ন পরিষদ, রাউতারা, চৌচির, বাইমারা ও আঙ্গারু গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ এ সড়ক দিয়ে সদর উপজেলায় যাতায়াত করেন। এক্ষেত্রে ভোগান্তিতে পড়তে হয় তাদের।

এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শারমিন আলম বলেন, উপজেলা হাসপাতালে সেবা নিতে আসা রোগীসহ এলাকার কয়েক হাজার মানুষ প্রতিনিয়তই চরম ভোগান্তিতে পড়ছেন। বিষয়টি তিনি কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন, কিন্তু তারা নীরব।

শাহজাদপুর উপজেলা এলজিইডির উপজেলা প্রকৌশলী মো. আরিফুজ্জামান বলেন, ‘১০ ফুট থেকে ১৪ ফুট প্রশস্ত রাস্তাটির ৮৬৪ মিটার মেরামতের অনুমোদন পাওয়া গেছে। আশা করছি আগামী তিন মাসের মধ্যে সড়কটি সংস্কারের কাজ শুরু হবে। পর্যায়ক্রমে বাকি রাস্তাও সংস্কারের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

পোতাজিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীর জাহান বাচ্চু অভিযোগ করেন, সাত গ্রামের মানুষের একমাত্র ভরসার রাস্তাটির বেহাল দশা। কিন্তু সেদিকে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নজর নেই।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com