এনপিপির সম্মেলনে খালেদা জিয়াকে আমন্ত্রণ

আমন্ত্রণপত্র গ্রহণ করছেন রিয়াজ উদ্দিন নসু।
আমন্ত্রণপত্র গ্রহণ করছেন রিয়াজ উদ্দিন নসু।ছবি : কালবেলা

বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে এনডিএফ জোটের প্রধান শরিক ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) ষষ্ঠ জাতীয় সম্মেলনে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। এ ছাড়া দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকেও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

আজ বুধবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে দুজনের আমন্ত্রণপত্র পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। বিএনপির পক্ষে আমন্ত্রণপত্র গ্রহণ করেন দলের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক এবং চেয়ারপারসন কার্যালয়ে দপ্তরের দায়িত্বপ্রাপ্ত রিয়াজ উদ্দিন নসু। তিনি কালবেলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ওই সময় এনপিপির প্রতিনিধি দলে উপস্থিত ছিলেন—দলের চেয়ারম্যানের রাজনৈতিক উপদেষ্টা ছাবের আহাম্মদ (কাজী ছাব্বীর), সহদপ্তর সম্পাদক এস এম আল-আমিন, ন্যাশনাল পিপলস মহিলা পার্টির সভাপতি ফেরদৌসী আক্তার (নীলা মল্লিক) এবং ন্যাশনাল পিপলস শ্রমিক পার্টির সভাপতি আবুল কালাম জুয়েল।

আগামী ১৯ নভেম্বর রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে এনপিপির ষষ্ঠ জাতীয় সম্মেলন হবে। দলের চেয়ারম্যান শেখ ছালাউদ্দিন ছালু এতে সভাপতিত্ব করবেন।

এনপিপির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ছিলেন মরহুম শেখ শওকত হোসেন নিলু। দলটি এক সময় ২০-দলীয় জোটের অন্যতম শরিক ছিল। তবে জোটে থাকা অবস্থায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া ইফতারে যোগ দেওয়া এবং দশম সংসদ নির্বাচন বর্জন করা নিয়ে বিএনপির সঙ্গে শেখ নিলুর দ্বন্দ্ব সৃষ্টি হয়। দ্বন্দ্ব দেখা দেয় এনপিপির মধ্যেও। এ নিয়ে তখন দলটির চেয়ারম্যান শেখ নিলু ও মহাসচিব ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ একে অন্যকে পাল্টাপাল্টি বহিষ্কার করেন। ফলে এনপিপি দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে যায়।

একপর্যায়ে ২০১৪ সালের আগস্টে সংবাদ সম্মেলন করে বিএনপি জোট ত্যাগ করেন শেখ নিলু। তবে ফরিদুজ্জামান ফরহাদের নেতৃত্বে এনপিপির একটি অংশ বিএনপি জোটে থেকে যায়। অন্যদিকে ওই বছরের ২৬ সেপ্টেম্বর ২০-দলীয় জোট থেকে বেরিয়ে আসা পাঁচটিসহ মোট দশটি দল নিয়ে এনডিএফ জোট গঠন করেন শেখ শওকত হোসেন নিলু। তবে ২০১৭ সালের ৭ মে শেখ নিলুর মৃত্যুর পর তার ভাই শেখ ছালাউদ্দিন ছালু দল ও জোটের চেয়ারম্যান হন।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com