রমজানে দ্রব্যমূল্য সাধারণের ক্রয়সীমায় রাখুন : হেফাজত

রমজানে দ্রব্যমূল্য সাধারণের ক্রয়সীমায় রাখুন : হেফাজত

রমজানে দ্রব্যমূল্য সাধারণ মানুষের ক্রয়সীমায় রাখা, জীবনের সর্বস্তরে পরিমিতিবোধ, ধৈর্য ও সংযম প্রদর্শনের মাধ্যমে রমজান মাসের পবিত্রতা রক্ষার আহ্বান জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব আল্লামা শায়েখ সাজিদুর রহমান। আজ শুক্রবার গণমাধ্যমে পাঠানো বিবৃতিতে তিনি এ আহ্বান জানান।

শায়েখ সাজিদুর রহমান বলেন, আসুন, পবিত্র রমজানের শিক্ষায় উদ্বুদ্ধ হয়ে যাবতীয় ভোগবিলাস, হিংসা-বিদ্বেষ, উচ্ছৃঙ্খলতা ও সংঘাত পরিহার করে শান্তি প্রতিষ্ঠায় পরস্পরকে সহযোগিতা করি। জীবনের সর্বস্তরে পরিমিতিবোধ, ধৈর্য ও সংযম প্রদর্শনের মাধ্যমে রমজান মাসের পবিত্রতা রক্ষা করি।

মুসলিম উম্মাহর প্রতি মোবারকবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, রমজান আত্মসংযম, অনুকম্পা ও ক্ষমা লাভের মাস। এ মাসে ত্যাগ স্বীকারের শিক্ষার মাধ্যমে আত্মার পরিশুদ্ধি ঘটে ও সর্বশক্তিমান আল্লাহর নৈকট্য লাভের সুযোগ হয়।

হেফাজতে ইসলামের এই নেতা বলেন, চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ২৩ বা ২৪ মার্চ থেকে আরবি মাস রমজান শুরু হবে। বিশ্বের অন্য মুসলমানদের সঙ্গে বাংলাদেশের মুসলমানরাও মাসব্যাপী ধর্মীয় আচার পালন করবেন। যদিও এই মাসের মূল তাৎপর্য হচ্ছে বিলাসিতা পরিহার করে নিজের ভোগ বা চাহিদাকে নিয়ন্ত্রণ করা। তারপরও এ মাসেই ভোগ্যপণ্যের বাজার অস্থির হয়ে ওঠে। বিশেষ করে ভোজ্যতেল, ছোলা, ডাল, মটর, পেঁয়াজ, মসলা, চিনি ও খেজুরের চাহিদা বাড়ে দ্বিগুণের বেশি। মানুষের অতিরিক্ত চাহিদার সুযোগে নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে ব্যবসায়ীদের একটি শ্রেণি যে যার মতো নিত্যপণ্যের দাম বাড়াতে থাকে। তিনি বাজার মনিটরিং করে সেইসব অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সরকারের কাছে জোর দাবি জানান।

তিনি ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে বলেন, রমজান মাসে পারস্পরিক সহযোগিতাপূর্ণ মনোভাব পোষণ করে ব্যবসা করুন। অন্তত রমজান মাসকে ব্যবসার উপলক্ষ না বানাই। এ মাস ইবাদতের মাস। এ মাসে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে সাধারণ মানুষের ইবাদতে যেন ব্যাঘাত না ঘটে সেদিকে খেয়াল রাখুন। দ্বিগুণ সওয়াব লাভের আশায় ন্যায্যমূল্যের চেয়ে কম মূল্যে ভোক্তাদের পণ্য সরবাহের চেষ্টা করুন। আল্লাহ আপনাদের ব্যবসায় বরকত দেবেন।

রমজানের পবিত্রতা রক্ষায় দিনের বেলায় হোটেল-রেস্তোরাঁ বন্ধ রাখার জন্য উদাত্ত আহ্বান জানিয়ে হেফাজত মহাসচিব আরও বলেন, রমজানে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা বজায় রেখে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। বেহায়াপনা, অশ্লীলতা, মদ, জুয়া, সুদ ও ঘুষ বর্জন করুন। নৈতিকতা শিক্ষায় ধর্মীয় শিক্ষাকে প্রাধান্য দিন। বেশি বেশি তওবা, ইস্তিগফার ও কোরআন তেলাওয়াত করুন।

রোজার মধ্যেই সারা দেশে কারাবন্দি আলেম উলামাদের মুক্তির জন্য সরকারের কাছে দাবি জানান সাজিদুর রহমান।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
logo
kalbela.com