ব্রাহ্মণবাড়িয়া উপনির্বাচন : উকিলের কলার ছড়ি নিয়ে ঘুরছে আওয়ামী লীগ

আব্দুস সাত্তার ভূঁইয়া
আব্দুস সাত্তার ভূঁইয়া

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল-আশুগঞ্জ) উপনির্বাচনে বিএনপির বহিষ্কৃত নেতা উকিল আব্দুস সাত্তার ভূঁইয়ার পক্ষে কোমর বেঁধে মাঠে নেমেছে আওয়ামী লীগ। বিভিন্ন এলাকায় উঠান বৈঠকসহ স্বতন্ত্র প্রার্থী উকিল আব্দুস সাত্তারের নির্বাচনী প্রতীক কলার ছড়ির পোস্টার ও প্ল্যাকার্ড হাতে নিয়ে করছেন মিছিল-মিটিংসহ কর্মিসমাবেশ। চাইছেন ভোট। মিছিলে মিছিলে সরগরম করে তুলছেন নির্বাচনী ময়দান। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাবেক উপদেষ্টা সাত্তারের নিজ ইউনিয়নে ব্যাপক প্রচার চালিয়েছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতারা। এ সময় তাদের পাশে উকিল আব্দুস সাত্তার ভূঁইয়া উপস্থিত না থাকলেও তার ছেলে মাইনুল ইসলাম তুষার সঙ্গে থাকছেন। এক্ষেত্রে জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের হাইকমান্ড থেকেও রয়েছে গ্রিন সিগন্যাল। ১ ফেব্রুয়ারি হবে এ নির্বাচন।

যদিও দলত্যাগী উকিল আব্দুস সাত্তারের পক্ষে আওয়ামী লীগের সরাসরি অবস্থান নেওয়াকে ভালো চোখে দেখছে না কেন্দ্রীয় বিএনপিসহ জেলা বিএনপির নেতারা। তাদের মতে আওয়ামী লীগ সাত্তার উকিলকে সমর্থন করার মধ্য দিয়ে নিজেদের দেউলিয়াত্বের প্রমাণ দিয়েছে।

গতকাল সোমবার বিকেলে আশুগঞ্জ উপজেলায় পাওয়ার স্টেশন ট্রেনিং সেন্টারে আব্দুস সাত্তারকে নির্বাচনে বিজয়ী করতে এবং তার পক্ষে কাজ করতে নেতাকর্মীদের আহ্বান জানিয়ে কর্মিসমাবেশ করেছে জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগ। আব্দুস সাত্তার ভূঁইয়া সমর্থক গোষ্ঠীর ব্যানারে আয়োজিত কর্মিসমাবেশে সভাপতিত্ব করেন আশুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছফিউল্লাহ মিয়া। এতে ছিলেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহম্মদ হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি তাজ মো. ইয়াছিন, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক মঈন উদ্দিন মঈন প্রমুখ। সভায় উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দকে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দেওয়া হয়। এ সময় দলের সিনিয়র নেতারা সৎ ও যোগ্য প্রার্থী হিসেবে উকিল আব্দুস সাত্তার ভূঁইয়ার পক্ষে কাজ করতে এবং তাকে জয়ী করতে আহ্বান জানান। আজ মঙ্গলবারও আব্দুস সাত্তার সমর্থক গোষ্ঠীর ব্যানারে তার সমর্থনে সভার আয়োজন করা হয়েছে।

এ ছাড়া সম্প্রতি অরুয়াইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আবু তালেব অরুয়াইল বাজারসহ আশপাশের এলাকায় উঠান বৈঠক করে সাত্তার উকিলের পক্ষে ভোট চেয়েছেন। সেইসঙ্গে রোববার বিকেলে অরুয়াইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাবেদ আল হাসানের নেতৃত্বে উকিল সাত্তারের ছেলে মাইনুল ইসলাম তুষারকে সঙ্গে নিয়ে একটি মিছিল পাকশিমুল ইউনিয়ন হয়ে অরুয়াইল বাজারসহ বিভিন্ন এলাকা প্রদক্ষিণ করে।

অরুয়াইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আবু তালেব জানান, এলাকার মুরুব্বি ও সম্মানীয় ব্যক্তি। তিনি এখন স্বতন্ত্র প্রার্থী। তিনি একজন সৎ ও ভালো মানুষ হওয়ায় আমরা আওয়ামী লীগ, যুবলীগসহ অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা এবং জনসাধারণও তার সমর্থনে কাজ করছি। দল থেকে আমাদের ওপর কোনো চাপ নেই। আমরা আমাদের মতো সর্বত্র সাত্তার সাহেবের জন্য গ্রামবাসীর সঙ্গে আলোচনা করছি। তার পক্ষে ভোট চাইছি। আমরা আশাবাদী অরুয়াইল ও পাকশিমুল থেকে সাত্তার সাহেব ৯০ পার্সেন্ট ভোট পাবেন। 

জানতে চাইলে জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও বর্তমান আহ্বায়ক কমিটির সদস্য হাফিজুর রহমান মোল্লা কচি জানান, দল ও দেশের জনগণের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করে সাত্তার সাহেব নিজেকে জাতীয় বেইমান হিসেবে পরিচয় দিয়েছেন। তার এ বিশ্বাস ঘাতকতার মধ্য দিয়ে তার সব অর্জন ধূলিসাৎ হয়ে গেছে। আর তাকে সমর্থন ও নির্বাচনে সার্বিক সহযোগিতার জন্য মাঠে নেমে আওয়ামী লীগ তাদের দেউলিয়াত্বের প্রমাণ দিয়েছে। 

আব্দুস সাত্তার ভূঁয়ার ছেলে মাইনুল ইসলাম তুষার জানান, এবার জনগণের কাছ থেকে যে সাড়া পাচ্ছি, তা বিগত কোনো সময়েই হয়নি। আওয়ামী লীগের সমর্থন বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বাবা স্বতন্ত্র প্রার্থী। যদি বিএনপির প্রার্থী হতেন তাহলে তো আর আওয়ামী লীগ সমর্থন করত না। এখন যেহেতু স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে, আওয়ামী লীগও তার পাশে রয়েছেন এতে ভালো লাগারই কথা। আওয়ামী লীগ আমাদের সার্বিকভাবে সহযোগিতা করছে।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
logo
kalbela.com