আসামি ছিনতাইয়ের চেষ্টা, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জোবায়ের গ্রেপ্তার

আসামি ছিনিয়ে নিতে র‌্যাবের ওপর ছাত্রলীগের হামলা
ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি দেলোয়ার হোসেন সাঈদী ও সাধারণ সম্পাদক জোবায়ের আহাম্মেদ।
ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি দেলোয়ার হোসেন সাঈদী ও সাধারণ সম্পাদক জোবায়ের আহাম্মেদ।ছবি: সংগৃহীত

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নাম ভাঙ্গিয়ে চাঁদা আদায়ের অভিযোগে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি দেলোয়ার হোসেন সাঈদীকে অস্ত্র ও মাদকসহ গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-৩। বুধবার (১৮ মে) রাতে রাজধানীর সবুজবাগ এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

পরে সাঈদীকে র‍্যাবের কাছে থেকে ছিনিয়ে নিতে শতাধিক নেতাকর্মী নিয়ে চেষ্টা চালায় ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জোবায়ের আহাম্মেদ। এ সময় তাকেও গ্রেপ্তার করে র‍্যাব।

সংবাদমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করে র‍্যাব-৩ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বীণা রানী দাস জানান, সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে জানা যায় রাজধানীর সবুজবাগ এলাকায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নাম ভাঙ্গিয়ে কিছু লোক চাঁদাবাজি করে আসছে। এই ঘটনার বিষয়ে প্রাথমিক সত্যতা পেয়ে বুধবার (১৮ মে) রাতে গোয়েন্দা সংবাদের ভিত্তিতে মাদারটেক সবুজবাগ এলাকায় অভিযান র‌্যাব-৩ এর একটি অভিযান পরিচালনা করে মো. দেলোয়ার হোসেন সাঈদীকে (২৪) গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় আসামির হেফাজত থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, একটি ম্যাগাজিন, দুই রাউন্ড গুলি ও ৫৭৮ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়।

তিনি বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নাম ভাঙ্গিয়ে চাঁদাবাজির বিষয়টি আসামি স্বীকার করে। এছাড়াও সে তার সহযোগীদের নিয়ে অস্ত্রসহ মহড়া দিয়ে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার ও ত্রাস সৃষ্টি করে আসছিল।

তিনি আরও জানান, অভিযান শেষে গ্রেপ্তার আসামিকে নিয়ে র‌্যাবের আভিযানিক দল রাস্তায় বের হলে মো. জোবায়ের আহাম্মেদ (২৯) এর নেতৃত্বে ১৫০-২০০ জন অবৈধ জনতায় মিলিত হয়ে গ্রেপ্তার মো. দেলোয়ার হোসেন সাঈদীকে ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। তারা র‌্যাবের আভিযানিক দলের উপর সশস্ত্র আক্রমণ করে। র‌্যাবের ২ জন সদস্য আহত হয়। এ সময় মো. জোবায়ের আহাম্মেদকেও গ্রেপ্তার করে র‌্যাবের আভিযানিক দল।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com