বেশি দামেই বিক্রি হচ্ছে চিনি

চিনি।
চিনি।পুরোনো ছবি

ঊর্ধ্বমুখী বাজার নিয়ন্ত্রণ করতে নিত্যপ্রয়োজনীয় ভোগ্যপণ্য চিনির দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে সরকার। তবে দাম নির্ধারণের অনেকটা সময় পেরিয়ে গেলেও তা মানছেন না ব্যবসায়ীরা। খুচরা বাজারে সরকার নির্ধারিত দামের চেয়ে কেজিতে ৮ থেকে ১২ টাকা বেশি দরে বিক্রি হচ্ছে।

প্রতি কেজি খোলা চিনি নির্ধারিত ১০২ ও ১০৮ টাকার পরিবর্তে ১১০ থেকে ১২০ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে। তবে প্যাকেট চিনির লট এখনো বাজারে আসেনি বলে জানিয়েছে মুদি ব্যবসায়ীরা। এ দিকে মূল কোম্পানির ৫০ কেজির বস্তা এবং প্যাকেট চিনির সরবরাহ স্বাভাবিকভাবে আছে দাবি সংশ্লিষ্টদের টিসিবির গতকাল বুধবারের ঢাকা মহানগরীর নিত্যপণ্যের বাজার দরের হালনাগাদ তথ্যেও দেখা গেছে, প্রতি কেজি খোলা চিনি বিক্রি হচ্ছে ১১০ থেকে ১১৫ টাকায়।

গত ১৭ অক্টোবর পরিশোধনকারী কোম্পানির প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে চিনির দাম নির্ধারণ করে সরকার, যা ওইদিন থেকে কার্যকরের কথা থাকলেও ব্যবসায়ীরা এখনো সেটা কার্যকর করেনি। ভোক্তাদের অভিযোগ, দোকানিরা বেশি লাভের আশায় প্যাকেট চিনি খুলে বিক্রি করছে।

সেগুনবাগিচা কাঁচাবাজারের মুদির দোকানিরা জানান, কোম্পানির পক্ষ থেকে গত এক মাস প্যাকেট চিনি সরবরাহ করা হচ্ছে না। পাশাপাশি বস্তা চিনি পাওয়া গেলেও দোকানে উঠানো পর্যন্ত প্রতি কেজির খরচ পড়ে ১০৮ থেকে ১১০ টাকা। তাই এগুলো প্রতি কেজি ১১৫ থেকে ১২০ টাকায় বিক্রি করতে হচ্ছে। তবে চিনির বাজার তদারকিতে সম্প্রতি মাঠে নেমেছে গোয়েন্দা সংস্থা। গত মাসের মাঠ পর্যায় থেকে তথ্য সংগ্রহ প্রতিবেদন আকারে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে জামা দিয়েছেন তারা।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com