‘ডোলমা খাং’ পর্বতশিখর বিজয়ীদের পতাকা প্রত্যর্পণ অনুষ্ঠিত

‘ডোলমা খাং’ পর্বতশিখর বিজয়ীদের পতাকা প্রত্যর্পণ অনুষ্ঠিত

হিমালয়ের ২০ হাজার ৭৭৪ ফুট উঁচু ‘ডোলমা খাং' পর্বতশিখর বিজয়ী বাংলাদেশি দলের সাংবাদিক সম্মেলন ও পতাকা-প্রত্যর্পণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে এ আয়োজন করা হয়। বাংলাদেশ- নেপাল কূটনৈতিক সম্পর্কের সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করার জন্য দুই দেশের ছয় পর্বতারোহী এই অভিযানে অংশ নেন।

এতে উপস্থিত ছিলেন, অর্থনীতিবিদ ও ব্র্যাক চেয়ারম্যান ড. হোসেন জিল্লুর রহমান, সম্মানিত অতিথি ছিলেন বাংলাদেশে নেপালের রাষ্ট্রদূত ঘনশ্যাম ভান্ডারী। আরও উপস্থিত ছিলেন অভিযানের স্পনসর ইস্পাহানি টি’র ডিজিএম (মার্কেটিং) ফজলে রাব্বি, স্কয়ার টয়লেট্রিজের সিনিয়র মার্কেটিং ম্যানেজার ফজল মাহমুদ রনি, চক্ষু চিকিৎসক ডা. নিয়াজ আব্দুর রহমান প্রমুখ। সংবাদ সম্মেলন পরিচালনা করেন অ্যান্টার্কটিকা ও সুমেরু অভিযাত্রী ইনাম আল হক।

হোসেন জিল্লুর রহমান বলেন, পর্বতারোহণ মূলত 'হিউম্যান স্পিরিট' এর পরীক্ষা মাত্র, মানুষ অন্তর্নিহিত শক্তিগুলো কিভাবে লালন করেন, সেটা বোঝা যায় পর্বতারোহণের মাধ্যমে।

তিনি আরও বলেন, “ফিটনেস এবং স্পোর্টস, ১০০ বছর বয়স যাদের, তাদের জন্যও প্রযোজ্য। আমি একটা প্রতিজ্ঞা করেছিলাম, আগামী বছর আমি এভারেস্টের বেইজক্যাম্প পর্যন্ত যাবো। সেই প্রতিজ্ঞা এখনো আছে। আসলে বিভিন্ন বয়সের লোকজন যে এটা করত পারে, সেটাও একটা বিশেষ ধরনের পরীক্ষা।

অনুষ্ঠানে ডোলমা খাং শিখরে উন্নীত বাংলাদেশের জাতীয় পতাকাটি অতিথিদের হাতে প্রত্যর্পণ করেন এ অভিযানে বাংলাদেশী অংশের নেতা এম এ মুহিত। এসময় তিনি স্লাইড দেখান ও তার অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন। এসময় আরও বক্তব্য দেন, দুই সহযাত্রী বাহলুল মজনু ও রিয়াসাদ সানভী।

প্রসঙ্গত চলতি বছরের ১২ অক্টোবর দুই দেশের আট পর্বতারোহী ২১ হাজার ৪৪৩ ফুট উঁচু অবিজিত শিখর দোগারি হিমাল অভিযানে যান; কিন্তু ১৬ হাজার ৪০০ ফুট উচ্চতায় আরোহণের পর বিরূপ প্রকৃতির জন্য অভিযানটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করেন। ২৪ অক্টোবর নতুন অভিযান পরিকল্পনা করে ২ নভেম্বর নেপাল সময় সকাল ৯টায় বাংলাদেশের চার পর্বতারোহী এম এ মুহিত, বাহলুল মজনু, ইকরামুল হাসান ও রিয়াসাদ সানভী এবং নেপালের দুই পর্বতারোহী কিন্তু পেম্বা শেরপা ও নিমা নুরু শেরপা 'ডোলমা খাং' শীর্ষে আরোহণ করেন।

অভিযানটি যৌথভাবে পরিকল্পনা করেছে বাংলা মাউন্টেইনিয়ারিং অ্যান্ড ট্রেকিং ক্লাব ও ইমাজিন নেপাল এবং স্পনসর করেছে ইস্পাহানি টি লি, স্কয়ার টয়লেট্রিজ লি. ও ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামি ব্যাংক লি.। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস লিমিটেড ২৫ শতাংশ ছাড়ে অভিযাত্রীদের ঢাকা-কাঠমান্ডু-ঢাকা বিমান টিকেট দিয়েছে।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com