সুইডিশ পণ্য বর্জনের আহ্বান হেফাজতের

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের লোগো।
হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের লোগো।ছবি : সংগৃহীত

সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে পবিত্র কোরআনে আগুন দেওয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ। গতকাল বুধবার এক বিবৃতিতে হেফাজতের আমির শাহ মুহিবুল্লাহ বাবুনগরী ও মহাসচিব শায়েখ সাজিদুর রহমান বলেন, ইসলামবিদ্বেষীরা সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে পবিত্র কোরআনে আগুন নিয়ে সারা বিশ্বের সকল মুসলিমের ধর্মীয় অনুভূতিতে চরমভাবে আঘাত করেছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, পবিত্র কোরআন বিশ্বের ২০০ কোটি মুসলমানের সবচেয়ে প্রিয় আসমানি কিতাব। এই গ্রন্থের সঙ্গে বিশ্বের সমস্ত মুসলিমের আবেগ-অনুভূতি জড়িত। অসভ্য ও বিকৃত রুচির সুইডিশ রাজনীতিবিদ রাসমাস পালুদান বিশ্বের মুসলমানের ওপর জুলুম করেছে। তাদের অনুভূতি ও বিশ্বাসের ওপর আঘাত করে মানবাধিকার লঙ্ঘন করেছে। বিবৃতিতে হেফাজত নেতৃবৃন্দ বিশ্বের সকল মুসলমান ও বিবেকবান মানুষকে সুইডিশ পণ্য বর্জনের আহ্বান জানান।

হেফাজত নেতারা বলেন, কোরআন পোড়ানোর মতো ন্যক্কারজনক ঘটনায় নীরব থেকে সুইডেনের সরকার বিশ্বে অশান্তি সৃষ্টির জন্য পাঁয়তারা চালাচ্ছে। সুইডিশ সরকার এই জঘন্য ঘটনায় সমান অপরাধী। এতে জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক বিশ্বের নীরবতার কঠোর সমালোচনা করে হেফাজত নেতৃবৃন্দ বলেন, মুসলিম বিশ্বে পান থেকে চুন খসলে জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক বিশ্ব হুমড়ি খেয়ে পড়ে। কিন্তু এমন ভয়ংকর মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনায় তারা নিশ্চুপ রয়েছে। তাদের এই নীরবতা প্রমাণ করে, এসব ঘটনায় তারা মৌন সমর্থন দিচ্ছে। এই নীরবতার পরিণাম শুভ হবে না। মুসলিম বিশ্ব জেগে উঠলে বিশ্ব মোড়লদের অস্তিত্ব থাকবে না।

হেফাজত নেতারা বলেন, অবিলম্বে বিকৃত রুচির সুইডিশ রাজনীতিবিদ রাসমাস পালুদানকে আন্তর্জাতিক আদালতে বিচারের মুখোমুখি করতে হবে। একই সঙ্গে সুইডিশ সরকারকেও জবাবদিহির আওতায় আনতে হবে।

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের লোগো।
পাঠ্যবইয়ে অনৈসলামিক বিষয় যুক্ত ষড়যন্ত্রের অংশ : হেফাজত আমির

হেফাজত নেতারা মুসলিম বিশ্বকে ঐক্যবদ্ধভাবে কোরআন অবমাননাসহ ইসলামবিদ্বেষী সকল কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ জানানোর আহ্বান জানিয়ে বলেন, মুসলিম বিশ্ব ঐক্যবদ্ধ হলে এসব বিকৃতরুচির ইসলামবিদ্বেষী ও তাদের পৃষ্ঠপোষকরা এসব কর্মকাণ্ড করার সাহস পাবে না। তাই মুসলিম বিশ্বের অভিভাকদের উচিত উম্মাহর কল্যাণে ও ইসলামের সুমহান মর্যাদা রক্ষার তাগিদে ঐক্যবদ্ধ হওয়া।

হেফাজত নেতৃবৃন্দ বলেন, আমরা দেখেছি বাংলাদেশ সরকার এই ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়েছে। আমরা দাবি জানাচ্ছি, বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম মুসলিম দেশ হিসেবে মুসলিম বিশ্বকে সঙ্গে নিয়ে বাংলাদেশ যেন সুইডিশ সরকারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে আওয়াজ তোলে। প্রয়োজনে সুইডেনের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থগিত ঘোষণা করে।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
logo
kalbela.com