২০২৩ সালে শ্রম আইন সংশোধন সম্পন্ন হবে : আইনমন্ত্রী

আইন, বিচার ও সংসদবিষয়কমন্ত্রী আনিসুল হক।
আইন, বিচার ও সংসদবিষয়কমন্ত্রী আনিসুল হক।ছবি : সংগৃহীত

২০২৩ সালের মাঝামাঝি নাগাদ বাংলাদেশ শ্রম আইন সংশোধনের প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে বলে জানিয়েছেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক। সংশোধিত এ আইন বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোতেও প্রয়োগ হবে।

সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) গভর্নিং বডির ৩৪৬তম অধিবেশনে অংশ নিয়ে বাংলাদেশের অবস্থান তুলে ধরতে গিয়ে এ কথা বলেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

আইএলওকে আশ্বস্ত করে তিনি বলেন, আইনি সংস্কারের পরবর্তী ধাপ হিসেবে শ্রম আইন সংশোধনের প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত ১৭টি স্টেকহোল্ডারের কাছ থেকে সংশোধনী প্রস্তাব পাওয়া গেছে। ত্রিপক্ষীয় ওয়ার্কিং গ্রুপ গুরুত্ব সহকারে সংশোধনী প্রস্তাবগুলো সংকলনের কাজ করছে।

ট্রেড ইউনিয়ন নিবন্ধন প্রসঙ্গে আইনমন্ত্রী বলেন, অধিকতর জবাবদিহি ও সচ্ছতা নিশ্চিত করতে ট্রেড ইউনিয়ন নিবন্ধন প্রক্রিয়াটি পুরোপুরি ডিজিটালাইজড করা হয়েছে।

আইন, বিচার ও সংসদবিষয়কমন্ত্রী আনিসুল হক।
জামায়াতের বিচারের জন্য আইন সংশোধন হবে : আইনমন্ত্রী

তিনি বলেন, শ্রম খাতে গুণগত পরিবর্তন আনতে দেশি-বিদেশি সামাজিক অংশীদার এবং অন্যান্য স্টেকহোল্ডারদের সঙ্গে সম্পৃক্ততা অব্যাহত রাখতে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

গভর্নিং বডির ৩৪৪তম অধিবেশনে আইএলও’র মহাপরিচালকের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে আইএলও কনভেনশন ১৩৮ অনুসমর্থনের দলিল হস্তান্তর করার কথা উল্লেখ করে আইনমন্ত্রী জানান, চলতি বছরের জানুয়ারিতেও বাংলাদেশ সরকার ‘জবরদস্তি শ্রম সম্পর্কিত আইএলও কনভেনশন, ১৯৩০ এর প্রোটোকল ২৯ অনুসমর্থন করেছে।

প্রতিনিধি দলে শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী  মুন্নুজান সুফিয়ান, শ্রম মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. এহসানে ইলাহী, সুইজারল্যান্ডে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ও জেনেভায় জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মো. সুফিউর রহমান ও অতিরিক্ত শ্রম সচিব জেবুন্নেছা কমির প্রমুখ অংশ নিয়েছেন।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com