রবীন্দ্রনাথের হাত ধরেই ঋতু উৎসবের শুরু : সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের বকুলতলায় ‘শরৎ উৎসব-১৪২৯’-এর উদ্বোধন করেন সংস্কৃতিবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের বকুলতলায় ‘শরৎ উৎসব-১৪২৯’-এর উদ্বোধন করেন সংস্কৃতিবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। ছবি : কালবেলা

সংস্কৃতিবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বলেছেন, বাংলাদেশ ষড়ঋতুর দেশ। গ্রীষ্ম, বর্ষা, শরৎ, শীত, হেমন্ত ও বসন্ত—এ ছয়টি ঋতুতেই বাংলার প্রকৃতি নতুন রূপে ও নতুন সাজে ধরা দেয়। বাংলাদেশে ঋতু উৎসবের শুরু মূলত রবীন্দ্রনাথের হাত ধরেই। তিনি সব ঋতুকে নিয়েই লিখেছেন।

আজ শুক্রবার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের বকুলতলায় সত্যেন সেন শিল্পীগোষ্ঠী আয়োজিত দুই দিনব্যাপী ‘শরৎ উৎসব-১৪২৯’-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

'শরৎ উৎসব-১৪২৯'-এ বক্তব্য দেন সংস্কৃতিবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।
'শরৎ উৎসব-১৪২৯'-এ বক্তব্য দেন সংস্কৃতিবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, এ বঙ্গে ঋতু উৎসব শুরু হয় ষাটের দশকে রাজধানী ঢাকায় ছায়ানটের পহেলা বৈশাখ উদযাপনের মধ্য দিয়ে। পরে ঢাকা ছাড়িয়ে সারা দেশে দল-মত-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে বাঙালির সবচেয়ে বড় এ অসাম্প্রদায়িক উৎসব ছড়িয়ে পড়ে। স্বাধীনতার পর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান পহেলা বৈশাখে সরকারি ছুটি ঘোষণা করেন।

সত্যেন সেন শিল্পীগোষ্ঠীর সহসভাপতি শিক্ষাবিদ ও নৃত্যশিল্পী ড. নিগার চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথির বক্তব্য দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ। এতে স্বাগত দেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মানজার চৌধুরী সুইট।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com