চেয়ারম্যান জাকিরের প্রতারণার শিকার ৩০০ মানুষ

গ্রেপ্তার জাকির চেয়ারম্যান।
গ্রেপ্তার জাকির চেয়ারম্যান।ছবি : সংগৃহীত

সুলভ মূল্যে গাড়ি কেনা এবং রেন্ট-এ-কার ব্যবসার আড়ালে ভয়ংকর প্রতারণার অভিযোগে জাকির হোসেন নামের এক চেয়ারম্যানকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা (তেজগাঁও) বিভাগ। গতকাল বৃহস্পতিবার কুমিল্লার মেঘনা থানা এলাকা তাকে গ্রেপ্তার করে ডিবি।

আজ শুক্রবার ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান ডিবিপ্রধান হারুন অর রশীদ।

জাকিরের কাছ থেকে দুটি মাইক্রোবাস উদ্ধার করা হয়েছে। জাকির হোসেন কুমিল্লার মেঘনা থানার ২নং মানিকাচর ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান।

ডিবিপ্রধান বলেন, গত ৭ সেপ্টেম্বর রাজধানীর মুগদা থানায় একটি প্রতারণার মামলা হয়। মামলাটি গোয়েন্দা বিভাগের তেজগাঁও জোনাল টিম ছায়াতদন্ত শুরু করে। তদন্তকালে জানা যায়, জাকির চেয়ারম্যান বন্দর থেকে কম দামে গাড়ি কেনার কথা বলে বিভিন্ন লোকের কাছে টাকা নেন এবং ক্রয় করা গাড়ি রেন্ট-এ কারের মাধ্যমে মাসিক ভাড়ায় পরিচালনা করার জন্য চুক্তি করেন।

জাকির চেয়ারম্যানের কাছ থেকে জব্দ করা মাইক্রোবাস।
জাকির চেয়ারম্যানের কাছ থেকে জব্দ করা মাইক্রোবাস।ছবি : সংগৃহীত

একই গাড়ি দেখিয়ে একাধিক ব্যক্তির সঙ্গে ভুয়া কাগজপত্রের মাধ্যমে চুক্তি করতেন। এ ছাড়া একই রেজিস্ট্রেশন নম্বর সম্বলিত গাড়ি একাধিক জাল দলিলের মাধ্যমে বিক্রি করতেন। আবার অধিকাংশ ক্ষেত্রে কারও সঙ্গে শুধু ইঞ্জিন নম্বর দিয়ে মাসিক কিস্তি পরিশোধের ভিত্তিতে চুক্তি করতেন। কিছুদিন পর্যন্ত কিস্তি পরিশোধ করে পরবর্তীতে কিস্তি দেওয়া বন্ধ করে বিপুল পরিমাণ অর্থ আত্মসাৎ করেন।

তিনি আরও বলেন, জাকির চেয়ারম্যান বিক্রি করা গাড়ি স্বল্পমূল্যে মালিকানা হস্তান্তরের লোভ দেখিয়ে একাধিক ব্যক্তির কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ অর্থ আত্মসাৎ করেছেন।

এ ছাড়াও তিনি ভুক্তভোগীর কাছ থেকে পুরো টাকা নিয়ে ডাউন পেমেন্টে গাড়ি কিনতেন। আবার ক্রেতাকে না জানিয়ে গাড়ির বিপরীতে ব্যাংক থেকে ঋণ নিতেন। দেশের বিভিন্ন জেলার বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার প্রায় ৩০০ ব্যক্তির সঙ্গে তিনি এমন প্রতারণা করেছেন।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com