অপ্রয়োজনীয় লাইট-এসি বন্ধের নির্দেশ আইসিটি প্রতিমন্ত্রীর

আগারগাঁওয়ে আইসিটি টাওয়ারে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক।
আগারগাঁওয়ে আইসিটি টাওয়ারে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক।ছবি: কালবেলা

বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে অপ্রয়োজনীয় লাইট ,ফ্যান ও এসি বন্ধ রাখার জন্য আইসিটি বিভাগের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক। সরকারের বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী কর্মসূচির অংশ হিসেবে মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) সকাল ৮টা ৪০ মিনিটে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে আইসিটি টাওয়ারের অফিসে প্রবেশ করেই এ নির্দেশ দেন তিনি।

এদিন আইসিটি বিভাগের ১৫টি ফ্লোর এবং অফিস কক্ষ ঘুরে দেখেন প্রতিমন্ত্রী। অফিস, কিচেন, করিডরে অপ্রয়োজনীয় বিদ্যুৎ ব্যবহার হচ্ছে দেখে প্রত্যেকটি দপ্তরে ঘুরে ঘুরে অপ্রয়োজনীয় সকল বৈদ্যুতিক বাল্ব ও এসি বন্ধের জন্য নির্দেশনা দেন তিনি। একই সঙ্গে বিভাগের সভাকক্ষে আয়োজিত পূর্ব নির্ধারিত সভায় সীমিত লাইট জ্বালিয়ে সভা পরিচালনার জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন প্রতিমন্ত্রী।

এসময় যেসব কক্ষে বাইরে থেকে আলো আসার ব্যবস্থা রয়েছে সেই কক্ষগুলোতে বাতি নিভিয়ে পর্দা সরিয়ে দিনের আলো ব্যবহার, এসি ব্যবহার সীমিত ও অফিসের কাজ পরিচালনায় এসি ২৫ ডিগ্রির ঘরে রাখার জন্য দপ্তর প্রধান ও সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দিয়েছেন পলক। এছাড়া যেসব রুমে কেউ নেই সেগুলোর পাওয়ারও বন্ধ করে দিতে বলেন তিনি।

এসময় উপস্থিত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আইসিটি প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিদ্যুৎ জাতীয় সম্পদ। করিডরে কোনো লাইটের দরকার নেই। অপ্রয়োজনীয় লাইট, ফ্যান ও এসি ব্যবহার করার বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে।

বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিচ্ছেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক।
বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিচ্ছেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক।ছবি: কালবেলা

তিনি বলেন বলেন, ‘বিদ্যুৎ ব্যয় সাশ্রয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহ্বানে সাড়া দিয়ে এক মাসের চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করেছি। তবে সে কাজটি নিজের ঘর থেকে শুরু করা দরকার। আর সেজন্য নিজ নিজ অবস্থান থেকে সবাইকে সচেতন হতে হবে। আমরা হিসাব করে দেখেছি আইসিটি বিভাগে ৭০ শতাংশ বিদ্যুৎ খরচ কমিয়ে আনা সম্ভব।’

আইসিটি বিভাগের অন্যান্য খরচ কমিয়ে আনতে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়ে পলক বলেন, অভ্যন্তরীণ মিটিংগুলোতে নাস্তা এবং খাওয়া-দাওয়ার ব্যয় কমিয়ে আনতে হবে। ব্যয় সাশ্রয়ে অভ্যন্তরীণ মিটিংগুলোতে নাস্তার বদলে শুধু পানি সরবরাহের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দিয়েছেন তিনি।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com