রোহিঙ্গাদের সুরক্ষায় জাপান ও ইউএনএইচসিআরের চুক্তি স্বাক্ষর

রোহিঙ্গা শরণার্থী।
রোহিঙ্গা শরণার্থী। ছবি : সংগৃহীত

বাংলাদেশে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সুরক্ষা ও মানবিক সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে সাড়ে তিন মিলিয়ন মার্কিন ডলারের একটি অংশীদারী চুক্তি স্বাক্ষর করেছে জাপান ও জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা ইউএনএইচসিআর। আজ বুধবার এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানায় জাপান দূতাবাস।

কক্সবাজারের ক্যাম্প ও ভাসানচরে বসবাস করা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ও জীবনমুখী উপযোগী পরিষেবা বজায় রাখতে এই অনুদান ব্যবহার করা হবে।

বাংলাদেশে ইউএনএইচসিআরের প্রতিনিধি ইয়োহানেস ভন ডার ক্লাও বলেন, ‘রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সহায়তা দেওয়ার জন্য এবং তাদের আশ্রয় প্রদানকারী বাংলাদেশের সরকার ও জনগণের সঙ্গে সংহতির জন্য, জাপান সরকার ও জাপানের জনগণের প্রতি ইউএনএইচসিআর কৃতজ্ঞ।’

ক্লাও আরও বলেন, ‘ভাসানচরে মানবিক কার্যক্রমের সহায়তায় জাপান প্রথম এগিয়ে এসেছিল। জাপানের সাহায্যের মাধ্যমেই সুরক্ষা ও অতি প্রয়োজনীয় সেবাসহ ভাসানচরে স্থানীয় এনজিওগুলোর কাজকে ইউএনএইচসিআর সুদৃঢ় করতে পেরেছে।’

বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি বলেন, ‘ভাসানচরে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর সুরক্ষা, স্বাস্থ্যসেবা ও জীবিকার সুযোগ উন্নত হবে এবং কক্সবাজারে তাদের নিরাপত্তা বাড়বে, এই দৃঢ় আশা নিয়ে জাপান এ প্রকল্পে সহায়তা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

ইতো নাওকি বলেন, রোহিঙ্গা সংকট ষষ্ঠ বছরে পৌঁছেছে। রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে দ্রুত প্রত্যাবাসনের জন্য সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি তাদের উন্নত ও মর্যাদাপূর্ণ জীবন নিশ্চিত করতে অর্থায়ন অব্যাহত রাখা অপরিহার্য। এই সংকটের টেকসই সমাধান একটি স্বাধীন ও উন্মুক্ত ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চল তৈরিতে সহায়ক হবে। আর এটি মাথায় রেখে রোহিঙ্গাদের মানবিক সহায়তা কার্যক্রমে জাপান বাংলাদেশের সরকার ও জনগণের পাশে থাকবে।

২০১৭ সালের আগস্টের পর থেকে ইউএনএইচসিআর ও বাংলাদেশে জাতিসংঘের অন্যান্য সংস্থা ও এনজিওগুলোকে ১৭০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারেরও বেশি সহায়তা দিয়েছে জাপান।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com