মোতাওয়াল্লি সমিতির বৈঠক অনুষ্ঠিত

গত সোমবার রাজধানীর বাংলামোটরে হামদর্দ বাংলাদেশের প্রধান কার্যালয়ের কনফারেন্স কক্ষে মোতাওয়াল্লি সমিতির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
গত সোমবার রাজধানীর বাংলামোটরে হামদর্দ বাংলাদেশের প্রধান কার্যালয়ের কনফারেন্স কক্ষে মোতাওয়াল্লি সমিতির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

রাজধানীর বাংলামোটরে মোতাওয়াল্লি সমিতির এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত সোমবার হামদর্দ বাংলাদেশের প্রধান কার্যালয়ের কনফারেন্স কক্ষে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে সারা দেশের ওয়াক্ফ এস্টেটগুলো সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা করতে সরকারের সহযোগিতা ও মোতাওয়াল্লিদের ঐক্যের ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন সংশ্লিষ্টরা। আজ বুধবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

মোতাওয়াল্লি সমিতির সভাপতি এবং হামদর্দ ল্যাবরেটরিজ (ওয়াক্ফ) বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও চিফ মোতাওয়াল্লি ড. হাকিম মো. ইউছুফ হারুন ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে বৈঠকে প্রধান অতিথি ছিলেন ওয়াক্ফ প্রশাসক খান মো. নুরুল আমিন। এ সময় চট্টগ্রামসহ সারা দেশের বিভিন্ন ওয়াক্ফ এস্টেটের মোতাওয়াল্লিরা উপস্থিত ছিলেন। তারা বৈঠকে ওয়াক্ফ এস্টেট পরিচালনার ক্ষেত্রে নানা ধরনের সমস্যা ও প্রতিবন্ধকতার কথা তুলে ধরেন।

ওয়াক্ফ প্রশাসক খান মো. নুরুল আমিন মোতাওয়াল্লিদের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়ে বলেন, ‘বর্তমান সরকার সর্বত্র সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। এরপরও এ বিষয়ে কোনো অনিয়ম বা আইন লঙ্ঘন হলে অবশ্যই তা খতিয়ে দেখা হবে।’

সভাপতির বক্তব্যে ড. হাকিম মো. ইউছুফ হারুন ভূঁইয়া বলেন, ওয়াক্ফ সম্পর্কে অনেকেরই সুস্পষ্ট ধারণা নেই। ফলে নানা ধরনের বিশৃঙ্খলা ও বিবাদ তৈরি হয়। এটা জানা থাকা দরকার যে, পাবলিক প্রপার্টি ও ওয়াক্ফ এস্টেটের জন্য দুটি ভিন্ন আইন রয়েছে। ওয়াক্ফ সম্পত্তি হচ্ছে আল্লাহর সম্পত্তি। এ কারণে সরকার প্রণীত আলাদা আইনে ওয়াক্ফ এস্টেটগুলো পরিচালিত হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, আইনে আছে বেনিফিশিয়ারি বা সুবিধাভোগী ছাড়া কেউ মোতাওয়াল্লির বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ বা প্রশ্ন তুললে সেটি গ্রহণযোগ্য হবে না। কিন্তু আইন লঙ্ঘন করে অনেক জায়গায় বহিরাগতরা ব্যক্তি স্বার্থে ওয়াক্ফ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অভিযোগ এমনকি মামলা মোকাদ্দমাও করছে। বেআইনি হওয়ার পরও সেসব অভিযোগ আমলে নিয়ে অনেক ক্ষেত্রে তদন্ত পর্যন্ত করা হচ্ছে। ফলে ওয়াক্ফ এস্টেট পরিচালনায় সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছেন মোতাওয়াল্লিরা এবং বিশৃঙ্খলা তৈরি হচ্ছে সারা দেশের বিভিন্ন জায়গায়।

এ সময় অবিলম্বে বহিরাগতদের এসব কর্মকাণ্ড ও অনিয়ম বন্ধ করতে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে ড. ইউছুফ হারুন বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যার কারণে এখনো সারা দেশে এস্টেটগুলো শৃঙ্খলার মধ্যে রয়েছে। এর বাইরে যেসব সমস্যা তৈরি হচ্ছে, তা কৃত্রিমভাবে তৈরি করা হচ্ছে, সংশ্লিষ্টদের আন্তরিকতা থাকলে শিগগিরই এসব সমস্যা সমাধান করা সম্ভব।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com